শনিবার, ১৭ অগাস্ট ২০১৯, ০৬:৫৯ অপরাহ্ন

জাকির নায়েককে গ্রেপ্তারে মালয়েশিয়া সরকারকে অনুরোধ

জাকির নায়েককে গ্রেপ্তারে মালয়েশিয়া সরকারকে অনুরোধ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

ডা. জাকির নায়েককে গ্রেপ্তারে ভারতের অনুরোধ ইন্টারপোল প্রত্যাখ্যান করার পর এবার নতুন করে ভাবছে দেশটি। তাকে গ্রেপ্তারে মালয়েশিয়ার সরকারকে অনুরোধ করা হবে বলে জানা গেছে।

এজন্য মঙ্গলবার মালয়েশিয়া সরকারের কাছে অনুরোধপত্র পাঠাবে ভারত সরকার। তবে জাকির নায়েক মালেয়েশিয়ায় কি না- সে বিষয়ে এখনো নিশ্চিত কিছু জানা যায়নি।

ধারণা করা হচ্ছে, তিনি মালয়েশিয়ায় রয়েছেন। গ্রেপ্তারের পর তাকে ভারতের কাছে ফিরিয়ে দিতে বলা হবে। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার

ভারতীয় নিরাপত্তা সংস্থা এনআইএ জানিয়েছে, অনুরোধ গ্রহণ করলে মালয়েশিয়া তাকে ফিরিয়ে দিতে বাধ্য থাকবে। একবার গ্রেপ্তার করা হলে ৬০ দিনের মধ্যে ফিরিয়ে দেয়ার বিধান রয়েছে।

উল্লেখ্য, ৫১ বছর বয়সী জাকির নায়েকের প্রতিষ্ঠিত ইসলামিক রিসার্চ ফাউন্ডেশন (আইআরএফ) নিষিদ্ধ করে ভারত। সেই সাথে চলতি বছরের অক্টোবরে তরুণদের সন্ত্রাসে উসকানি দেয়ার অভিযোগে জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। ঢাকার গুলশানে হলি আর্টিজানে নিহত জঙ্গিদের কয়েকজন জাকির নায়েকের বক্তব্যে অনুপ্রাণিত হয়েছিলেন বলে অভিযোগ ওঠে। গুলশান হামলার পর জাকির নায়েকের কার্যকলাপ নজরদারিতে আনা হয়।

জাকির নায়েক নিজেকে পুলিশের আন্তর্জাতিক সংস্থার (ইন্টারপোল) গ্রেপ্তার থেকে রক্ষা করতে সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল-সৌদ’র কাছে নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করেন। পরে তার আবেদন মঞ্জুর করা হয়।

জাকির নায়েক নিয়ে ইন্টারপোলের সিদ্ধান্তে বেকায়দায় ভারত!
লিউ: ইসলাম নিয়ে বক্তব্য দিয়ে আন্তর্জাতিকভাবে পরিচিতি পাওয়া টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব ড. জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে ‘রেড নোটিশ’ জারির অনুরোধ জানিয়ে আন্তর্জাতিক পুলিশ সংস্থা ইন্টারপোলের তিরস্কার পেয়েছে ভারত। এই নোটিশ জারি হলে আন্তর্জাতিক ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞায় পড়তেন জাকির। এছাড়া বিভিন্ন দেশের পুলিশি সংস্থার কাছে ভারত একই ধরনের অনুরোধ জানালে তাও প্রত্যাহার করে নেওয়ার কথা জানিয়েছে ইন্টারপোল।

গত বছর ঢাকার গুলশানে হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলায় বিদেশিসহ ২১ জন নিহতও হওয়ার ঘটনায় দুই অভিযুক্ত জাকির নায়েকের বক্তব্যে অনুপ্রাণিত হওয়ার কথা জানায়। এরপরই তার বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করে ভারত। বাতিল করা হয় পাসপোর্ট। বন্ধ করে দেওয়া হয তার মালিকানাধীন পিস টেলিভিশনের সম্প্রচার। ঘটনার সময় সৌদিতে ওমরাহ পালনরত জাকির পরে আর ভারতে ফেরেননি। গত ২৬ অক্টোবর আদালতে ৬৮ পাতার অভিযোগ পত্র জমা দেয় ভারতীয় তদন্ত সংস্থা এনআইএ।

ইন্টারপোলের এই পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছেন জাকির নায়েক। এক ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন, ‘আমি নিশ্চিন্ত। তবে আরও নিশ্চিন্ত হবো যদি আমার নিজের দেশের সরকার আর তদন্ত সংস্থাগুলো আমাকে ন্যায়বিচার দিয়ে সব অভিযোগ থেকে আমাকে মুক্ত করে দেয়।’

তবে একে নিরাপত্তা বাহিনীর জন্য একটি পরাজয় হিসেবে দেখছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো। জাকির নায়েকের আবেদনে ইন্টারপোলের সাড়া দেওয়ার কারণ হিসেবে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো ভারতের ‘অপরিপক্ক’ আবেদন দায়ী বলে বিবেচনা করছে।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, ইন্টারপোলের যে প্যানেল এ ধরনের নোটিশের তাদের কাছে বিবেচ্য বিষয় হল কোনো ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করার পর তিনি যেন অন্য দেশে আশ্রয় নিতে না পারেন। সন্দেহভাজন ব্যক্তির বিরুদ্ধে তদন্ত চলার সময়ে এই ধরনের নোটিশ জারি করা হয় না।

ভারতীয় ওই আবেদনের আগ পর্যন্ত জাকিরের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ দায়ের করা হয়নি। ইন্টারপোল বলছে ভারতীয় আইন অনুসারে কোনো ব্যক্তির বর্হিগমণ রুখতে এটাই মৌলিক চাওয়া।

গত অক্টোবরে নেওয়া সিদ্ধান্তের বিষয়ে ইন্টারপোল বলছে, ‘অভিযোগের এই পর্যায়ে কমিশন দেখেছে আবেদনকারীকে গ্রেফতারে রেড নোটিশ জারি করা একটি অপরিপক্ক কাজ।’

এই কথা জানার পরই গত অক্টোবরে তড়িঘঢ়ি করে মুম্বাই আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয় এনআইএ। তবে তখন তা অনেক দেরি হয়ে যায়।

তবে আনাদালু এজেন্সির খবরে বলা হয়েছে, ভারতীয় জাতীয় তদন্ত সংস্থার মুখপাত্র অলোক মিত্তাল বিবৃতিতে জানিয়েছেন জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে নতুন করে আবারও রেড নোটিশ জারির অনুরোধ করা হবে।

সময়ের ধারা নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com