মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৯:০৬ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
ময়মনসিংহের ভালুকায় নারী ছিনতাইকারী চক্রের ৮ সদস্য আটক ময়মনসিংহের ভালুকায় নৃ-তাত্বিক জনগোষ্ঠীর মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের মাঝে বৃত্তি প্রদান হাটহাজারীতে ভূমি অফিসের ফাইল বিক্রি হচ্ছে দোকানে ! ময়মনসিংহের ভালুকায় নারী সাংবাদিকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার আফগানিস্তানের বিপক্ষে সম্ভাব্য বাংলাদেশ একাদশ জাতিসংঘের কাছে কাশ্মীরি শিশুদের নিরাপত্তা চাইলেন মালালা সারদা পুলিশ একাডেমিতে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী ঢামেকে নবজাতককে রেখে পালালেন মা-বাবা ছাত্রলীগ সভাপতি-সা.সম্পাদকের পদ হারালেন শোভন-রাব্বানী, ভারপ্রাপ্ত জয়-লেখক ময়মনসিংহের ভালুকায় এমপি পংকজ দেবনাথের বিরুদ্ধে সোশ্যাল মিডিয়ায় নোংরা প্রচারণাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে স্বেচ্ছাসেবকলীগের বিক্ষোভ সমাবেশ
ফেনীতে এমএলএম কোম্পানি ‘তিয়ানশি বাংলাদেশ’র ভয়াবহ প্রতারণা

ফেনীতে এমএলএম কোম্পানি ‘তিয়ানশি বাংলাদেশ’র ভয়াবহ প্রতারণা

ফেনী প্রতিনিধি :
ফেনীতে এমএলএম কোম্পানি ‘তিয়ানশি বাংলাদেশ’র বিভিন্ন প্রতারণার অভিযোগ উঠেছে। সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপ থাকার পর ও থেমে নেই এমএলএম কোম্পানীর প্রতারণার ব্যবসা। ধরা পড়ে একের পর এক নাম বদল করে অব্যাহত রেখেছে তাদের মানুষ ঠকানোর কার্যক্রম। সরকার এমএলএম-এর নামে প্রতারণার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করলেও কোম্পানীগুলো আদালতে গিয়ে রিট করে রায় স্থগিতের আদেশ পেয়ে আবারও চালিয়ে যাচ্ছে তাদের কর্মকান্ড। তারা শহরের পরিচিত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ইফতার পার্টি, চা চক্রসহ নানা অনুষ্ঠানের আড়ালে মানুষের মস্তিষ্ক ধোলাইয়ে ব্যস্ত রয়েছে। অন্য কোম্পানীগুলোর চেয়ে ভাল বলে বেশি কমিশন পাওয়ার লোভ দেখাচ্ছে। তারা তাদের টার্গেট হিসাবে শহরের অসৎ এ্যালোপ্যাথি ও হোমিওপ্যাথি ডাক্তারদেরসহ শিক্ষার্থীদেরকে বেছে নিয়ে তাদের সাথে কমিশনের ভিত্তিতে এই প্রতারণার ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। এতে ঠকছেন সাধারণ মানুষ। আর তাতে পটেও যাচ্ছেন হুজুগে মাতাল লোভী ব্যক্তিরা।
ভুক্তভোগীদের অভিযোগে জানা গেছে, রাতারাতি গাড়ি-বাড়ির মালিক হয়ে যাওয়ার লোভ দেখিয়ে চীনা এমএলএম কোম্পানী তিয়ানশি ফেনী অফিসের তত্ত্বাবধায়ক আব্দুল হান্নান শিক্ষার্থীদেরকে তার অফিসের কর্মী করে। শিক্ষার্থীদেরকে থ্রি স্টার বানানোর প্রলোভন দেখিয়ে ২৪ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। এরপর 3, 4, 5, 6, 7 স্টার হলে সিঙ্গাপুর, দুবাইসহ বিভিন্ন দেশে ফ্রি ভ্রমন করানোর কথা বলে আরো লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়। কোটিপতি বানানোর মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে আবু দাউদ, অলিয়ার রহমান, মোকাবের, মতিয়ার, শাহিনা, মমিনসহ প্রায় শতাধিক তরুণ-তরুণীকে কোম্পানিতে যোগদান করান।
অভিযোগে আরো জানা যায়, এখানে ডিগ্রীধারি কোন ডাক্তার নেই। তারা নিজেরাই ডাক্তার সেজে রোগী দেখছেন। সারা বিশ্বের বড় বড় বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা যখন ক্যান্সার রোগের নিরাময়ের উপায় খুঁজতে ব্যস্ত। তখন এই সব এমএলএম কোম্পানীগুলো ক্যান্সার চিকিৎসার নানা পণ্য বাজারে নিয়ে ক্যান্সার রোগীদের দূর্বলতার সুযোগ নিচ্ছে। এছাড়া রোগ বালাই নিরাময় হওয়াসহ বিভিন্ন যন্ত্রপাতি কেনার কথা বলে শিক্ষিত তরুণ-তরুণীদের কাছ থেকে আরো লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেওয়া হয়েছে। কথিত আছে তাদের পণ্য কোন ঔষধ নয়, সম্পূরক খাবার মাত্র। অথচ তারা চিকিৎসার নামে অসহায় রোগীদের হাতে এই সব পন্য ঔষধ হিসেবে ধরিয়ে দিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা। কেউ টাকা ফেরতের কথা বললে তারা উল্টো বিভিন্ন মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে থাকে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক তিয়ানশি’র পণ্য ব্যবহারকারী জনৈক ব্যক্তি জানান, ‘ওরে কেয়ার’ টুথ পেস্ট, হৃদরোগ, যৌন রোগের মেডিসিনসহ প্রায় ৫০টি পণ্য চড়া মূল্যে কমিশন ভিত্তিতে শিক্ষার্থীদের নিয়োগ দিয়ে সাধারণ মানুষের কাছে বিক্রি করছে। আর এগুলো ব্যবহার করে সুফল পাচ্ছেন না ক্রেতারা। ভুক্তভোগীর অভিযোগে জানা গেছে, তিনি নিজেও ১৩৫ গ্রামের একটি টুথ পেস্ট তিনশ’ টাকা বিক্রি করছে। এছাড়া অন্যান্য পণ্যের দামও কয়েকগুন বেশি। সব রোগের এক ওষুধ! অনেকেই কোম্পানির এ প্রতারণার শিকার।
ফেনীর এস.এস.কে রোডের চক্ষু হাসপাতালের উপরে অবস্থিত তিয়ানশির অফিসের তত্ত্বাবধায়ক আব্দুল হান্নান সাথে তার ব্যবহৃত মুঠো ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে পাওয়া যায়নি।

সময়ের ধারা নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com