শুক্রবার, ১৬ অগাস্ট ২০১৯, ০১:৪৭ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
কালীগঞ্জে বাল্য বিয়ের দায়ে জরিমানা ময়মনসিংহের ভালুকায় যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হলো জাতীয় শোক দিবস ভালুকায় যুবলীগ নেতার বাসাবাড়িতে অগ্নিকান্ডে ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়েছে ময়মনসিংহের ভালুকায় ডাকাতিয়া ইউনিয়ন অর্নাস এসোসিয়েশন আয়োজিত ঈদ পুনর্মিলনী ও সংবর্ধনা ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন ভেলাগুড়ী ইউপি চেয়ারম্যান মহির উদ্দিন সরকারের পাশাপাশি যুব সমাজকে ডেঙ্গু প্রতিরোধে এগিয়ে আসতে হবে- কাজিম উদ্দিন আহম্মেদ ধনু এমপি ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন এ্যাডভোকেট আঞ্জুমানআরা শাপলা ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ওসি মোস্তাফিজার রহমান ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবু সাঈদ ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন চন্দ্রপুর ইউনিয়নের কাজী শরিফুল
প্রেমের ফাঁদে ফেলে ছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণ! এরপর…

প্রেমের ফাঁদে ফেলে ছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণ! এরপর…

ছবি : প্রতীকী

সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলায় এক কলেজছাত্রীকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে প্রেমিকের বিরুদ্ধে।

মেয়েটি উচ্চ মাধ্যমিকে পড়ছে। তার বাবা-মা’র স্বপ্ন তাকে শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত করবেন। কিন্তু, নিম্নবিত্ত পরিবারের মেয়েটি স্কুলেকে পড়াবকালীন সময়ে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। প্রতিবেশী এক তরুণের সঙ্গে সে এই প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে।

তাদের গভীর প্রেম একসময় শারীরিক সম্পর্ক পর্যন্ত গড়ায়। এরপর মেয়েটি বিয়ের জন্য চাপ দিলেও প্রেমিক কৌশলে ‘ব্রেকআপ’ করতে চায়।

কিছুদিন এভাবে যাওয়ার পর মেয়েটিও কৌশলের আশ্রয় নেয়। গত ২১শে অক্টোবর বিকালে প্রেমিককে নিয়ে এক নির্জন বাড়িতে যায়। সেখানে তারা দুই জন একান্তে সময় কাটানোর সময় পুলিশ গিয়ে হাজির হয়।

এ খবর পেয়ে দু’জনের অভিভাবকরা ঘটনাস্থলে পৌঁছান। মেয়ের পক্ষ থেকে তখন প্রেমিককে বিয়ের জন্য চাপ দিলেও সে বিয়ে করতে সম্মত হয়নি। এরপর মেয়ের পিতা বাদী হয়ে ধর্ষণের অভিযোগে প্রেমিক সাহেদ আহমদের (২৩) বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।

পরে পুলিশ গ্রেফতার করে সাহেদকে আদালতে প্রেরণ করে।

জানা যায়, অভিযুক্ত সাহেদ বিয়ানীবাজার উপজেলার নবাং গ্রামের জিয়াউদ্দিন চুনু মিয়ার ছেলে।

এ ঘটনায় মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই সিরাজুল ইসলাম জানান, প্রেমের ফাঁদে ফেলে মেয়েটিকে একাধিকবার ধর্ষণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা হলে আমরা অভিযুক্তকে গ্রেফতার করি।

এর আগেও বিয়ানীবাজার এলাকায় বহু ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বিয়ানীবাজার উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রুকসানা বেগম লিমা।

তিনি বলেন, মেয়েদের আরও সতর্ক হয়ে চলাফেরা করতে হবে। প্রেম করার আগে ছেলেকে যাচাই-বাছাই করতে হবে। একই সঙ্গে ধর্ষকদের কঠিন শাস্তি নিশ্চিত করতে পারলে এ ধরনের জঘন্য অপরাধ হ্রাস পাবে।

উল্লেখ্য, বিয়ানীবাজারের দুবাগ এলাকার চরিয়া গ্রামে গত ১লা অক্টোবর ধর্ষণের অভিযোগে আরেকটি মামলা দায়ের করা হয়। মামলার একমাত্র আসামি মৃত মইনউদ্দিনের ছেলে বজলুর রহমান (৩৫) পলাতক রয়েছে। সেও প্রেমের ফাঁদে ফেলে প্রতিবেশী এক তরুণীকে ধর্ষণ করে।

নিম্নবিত্ত পরিবারের ওই মেয়েটিকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসিতে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। স্থানীয় ইউপি সদস্য এনামুল হক ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেন বলে অভিযোগ করেন মামলার বাদী।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই কামরুল ইসলাম জানান, আসামিকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

সময়ের ধারা নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com