বুধবার, ২১ অগাস্ট ২০১৯, ০৭:০১ পূর্বাহ্ন

১৬১ রান করে বিদায় নিলেন মুমিনুল

১৬১ রান করে বিদায় নিলেন মুমিনুল

২৬ রানেই নেই তিন উইকেট। লিটন কুমার দাস, ইমরুল কায়েস এবং অভিষিক্ত মোহাম্মদ মিঠুনের দ্রুত আউট হয়ে যাওয়ার দারুণ ব্যাটিং বিপর্যয়ে বাংলাদেশ। এমন পরিস্থিতিতে একটি জুটি ছিল খুব প্রয়োজন। বাংলাদেশকে একটা স্বস্তির জায়গায় নিয়ে যাওয়ার জন্য কে ধরবে সেই হাল?

অবশেষে দুই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান মুমিনুল হক এবং মুশফিকুর রহীমের ব্যাটে গড়ে উঠলো বিশাল এক জুটি। বাংলাদেশকে স্বস্তির জায়গাতেই নয় শুধু, নিয়ে গেলো প্রভাব বিস্তারকারী এক জায়গায়। পুরো ম্যাচটাই নিজেদের হাতের মুঠোয় নিয়ে এসেছেন মুমিনুল এবং মুশফিক।

দু’জনের ব্যাটে গড়ে উঠলো ২৬৬ রানের বিশাল এক জুটি। ক্যারিয়ারের সপ্তম সেঞ্চুরি করার পর মুমিনুল নিজেকে ধীরে ধীরে তুলে ফেলছিলেন রানের চূড়ায়। ১৫০ রানের গণ্ডি পেরিয়ে চলে যায় ১৬০ এর ঘরে। অবশেষে ১৬১ রান করে বিদায় নিতে হলো বাংলাদেশের অন্যতম সেরা এই টেস্ট ব্যাটসম্যানকে।

নতুন বল আসতেই উইকেট দিতে বাধ্য হলেন মুমিনুল। তেন্দাই চাতারাকে চেয়েছিলেন কাভার ড্রাইভ করতে। কিন্তু বল চলে যায় পয়েন্টে দাঁড়ানো ব্রায়ান চারির হাতে। অনায়াসেই বলটা তালুবন্দী করে ফেলেন চারি। ২৪৭ বলে ১৬১ রানের অনবদ্য ইনিংসটি তিনি সাজিয়েছেন ১৯টি বাউন্ডারিতে।

এ রিপোর্ট লেখার সময় বাংলাদেশের রান ৮৭.৪ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ২৯৫। ১১১ রান নিয়ে ব্যাট করছেন মুশফিকুর রহীম এবং শূন্য রানে রয়েছেন নাইটওয়াচম্যান হিসেবে মাঠে নামান তাইজুল ইসলাম।

বাংলাদেশের লিটল মাস্টার কিংবা বাংলাদেশের ব্র্যাডম্যান- কত নামেই না তাকে ডাকা হয়। টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ রানের গড়ও তার। সেই মুমিনুলের ব্যাট যখন কথা বলে, তখন হাসে বাংলাদেশের ক্রিকেট সমর্থকরা। কিন্তু তার ব্যাট কিছুদিন ছিল নিষ্প্রভ। বাংলাদেশও পাচ্ছিল না কাঙ্ক্ষিত সাফল্য।

গত আটটি ইনিংসে সেঞ্চুরি দূরে থাক, মুমিনুলের ব্যাটে হাফ সেঞ্চুরির দেখাও নেই। সর্বোচ্চ রান ৩৫। সেই অবস্থায় মুমিনুলের নিজের যেমন ঘুরে দাঁড়ানো খুব প্রয়োজন ছিল, তেমনি দলেরও প্রয়োজন ছিল তার ব্যাটে রান।

সেই অতি গুরুত্বপূর্ণ কাজটিই করে ফেললেন দারুণ বিপর্যয়ের মুখে দাঁড়িয়ে। ২৬ রানের মধ্যেই যখন টপ অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে ফেলেছিল বাংলাদেশ, তখন সিলেটের শঙ্কাই পেয়ে বসেছিল আবার। সে অবস্থা থেকে বাংলাদেশকে সঠিক পথে ফেরানোর জন্য একটি জুটির খুব প্রয়োজন ছিল। অভিজ্ঞ মুশফিকুর রহীমকে নিয়ে সে কাজটাই করে দেখালেন মুমিনুল।

দারুণ বিপর্যয়ের মুখে দাঁড়িয়ে শুধু উইকেটে অটলই থাকেননি, দৃঢ়তার সাথে ব্যাটিং করে দলের রানকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি ক্যারিয়ারের সপ্তম সেঞ্চুরির দেখা পেয়ে গেলেন মুমিনুল হক। ১৫০ বল খেলে ক্যারিয়ারের সপ্তম সেঞ্চুরির মাইলফলকে পৌঁছান বাংলাদেশের এই টেস্ট স্পেশালিস্ট ব্যাটসম্যান।

সময়ের ধারা নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com