বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১১:১৪ অপরাহ্ন

বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতা কারাগারে

বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতা কারাগারে

কুমিল্লা-১০ (সদর দক্ষিণ, লালমাই, নাঙ্গলকোট) আসনটি দেশের বৃহৎ সংসদীয় আসন, জেলার গুরুত্বপূর্ণ আসন এটি। পূর্বে চৌদ্দগ্রাম, ছাগলনাইয়া, দক্ষিণে সেনবাগ উপজেলা, পশ্চিমে মনোহরগঞ্জ, লাকসাম, বরুড়া উপজেলা, উত্তরে আদর্শ সদর উপজেলা।

এ আসনটিতে প্রায় সাড়ে ৫ লাখ ভোটার ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। চলতি বছরের ১ অক্টোবর নাঙ্গলকোট উপজেলা বিএনপির আহবায়ক মোবাশ্বের আলম ভূঁইয়াকে ডিবি পুলিশ আটক করে হাতিঝিল থানায় একটি মামলা গ্রেফতার দেখালো পুলিশ।

চৌদ্দগ্রাম থানার দুইটি মামলায় মনিরুল হক চৌধুরী হাইকোর্ট থেকে অন্তবর্তীকালীন জামিনে ছিলেন। গত ২৪ অক্টোবর জেলা জজ আদালত তার জামিন বাতিল করে কারাগারে প্রেরণ করেন।
বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম সমন্বয়ক কুমিল্লা ১০ আসনের ধানের শীষের প্রার্থী সাবেক এমপি মনিরুল হক চৌধুরীকে আরও দুইটি মামলায় গ্রেফতার দেখানোর জন্য আদালতে আবেদন দাখিল করা হয়েছে।

জেলার নাঙ্গলকোট থানা পুলিশ সন্ত্রাস বিরোধী আইনে এবং বিশেষ ক্ষমতা আইনের ওই দুটি মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানোর জন্য গত মঙ্গলবার পৃথক দুইটি আবেদন করে।

বৃহস্পতিবার বিকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেন মনিরুল হক চৌধুরীর পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আবদুল মোতালেব মজুমদার।

জানা যায়, জেলার নাঙ্গলকোট থানায় গত ২১ আগস্ট বিশেষ ক্ষমতা আইনে একটি এবং ৮ সেপ্টেম্বর সন্ত্রাস বিরোধী আইনের একটিসহ পৃথক ২টি মামলায় মনিরুল হক চৌধুরীকে গ্রেফতার দেখানোর জন্য ওই থানার পুলিশ গত মঙ্গলবার কুমিল্লার জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের ৫নং আমলী আদালতে পৃথক দুইটি আবেদন দাখিল করে।

মনিরুল হক চৌধুরীর পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আবদুল মোতালেব মজুমদার বলেন, ওই আদালতের বিচারক রোকেয়া বেগম আগামী ২৬ নভেম্বর মনিরুল হক চৌধুরীর উপস্থিতিতে পুলিশের ওই দুইটি আবেদনের শুনানীর তারিখ ধার্য করেছেন। তবে এসব মামলার এজাহারে তার নাম নাই।

তিনি আরও বলেন, ২০১৫ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি জেলার চৌদ্দগ্রামে দুর্বৃত্তদের পেট্রোল বোমা হামলায় বাসের ৮ যাত্রী নিহতের ঘটনায় চৌদ্দগ্রাম থানার দুইটি মামলায় মনিরুল হক চৌধুরী হাইকোর্ট থেকে অন্তর্বতীকালীন জামিনে ছিলেন।

গত ২৪ অক্টোবর জেলা জজ আদালত তার জামিন বাতিল করে কারাগারে প্রেরণ করেন। পরে ওই দুটি মামলায় গত ৪ নভেম্বর হাইকোর্ট থেকে তার জামিন আদেশ হয়। এরপর জেলার সদর দক্ষিণ মডেল থানা পুলিশের সন্ত্রাস বিরোধী ও বিশেষ ক্ষমতা আইনের পৃথক দুটি মামলায় গ্রেফতার দেখানোর কারণে জেলে রয়েছেন।

কুমিল্লা ১০ আসনের সাবেক এমপি ও কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির উপদেষ্টা আব্দুল গফুর ভূঁইয়াকে হাইকোর্ট এলাকা থেকে আটক করে ডিবি পুলিশ। (শনিবার ১৫ নভেম্বর) দুপুর ২টা ঢাকা হাইকোর্ট থেকে আটক করা হয়।

জানা যায় গত বৃহস্পতিবার নাঙ্গলকোট থানা পুলিশের দায়ের করা মামলা জামিন নিতে আইনজীবীদের সাথে কথা বলে নামাজ পড়তে যায়, নামাজ পড়ে বের হলে হাইকোট প্রাঙ্গণ থেকে ডিবি পুলিশ আটক করে।

সময়ের ধারা নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com