মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ১২:০০ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
যশোরে ১৯ নভেম্বর শহীদ মোহাম্মদ উল্লাহ বীর বিক্রমের ৪৮তম শাহাদৎ বার্ষিকী পালনের প্রস্তুতি গ্রহন যশোরে বঙ্গবন্ধু ম্যুরালে সদর উপজেলা ও শহর আ‘লীগের নবনির্বাচিত নেতৃবৃন্দের শ্রদ্ধা কোষ্ঠকাঠিন্যে ভুগছেন, খেয়ে দেখুন লবণপানি বঙ্গবন্ধু বিপিএলের ৭ দলের নাম চূড়ান্ত পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট জনগনের কল্যাণে নিবেদিত রংধনু গ্রুপের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব রফিকুল ইসলাম ‘ঢাবি ট্যালেন্ট হান্ট’ সূর্যসেন হলের প্রতিযোগিতা বাজিতপুরে আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত যশোরের সতীঘাটাস্থ নূর ফিলিং স্টেশনে হেলমেট বিহীন মোটরসাইকেল চালকদের কাছে অবাধে  তেল বিক্রয়, দেখার কেউ নেই গাজা সীমান্তে সেনা বাড়াচ্ছে ইসরাইল, বাড়ছে হামলা
এইচআইভি ভাইরাস মুক্ত হলেন ব্রিটিশ রোগী

এইচআইভি ভাইরাস মুক্ত হলেন ব্রিটিশ রোগী

চিকিৎসা বিজ্ঞানে ঘটলো আর একটি যুগান্তকারী ঘটনা। দ্বিতীয় আরেকজন ব্রিটিশ রোগীকে মরণব্যাধি এইডসের ভাইরাস এইচআইভি মুক্ত করা গেছে। আর এই কাজটি করা হয়েছে অস্থিমজ্জা প্রতিস্থাপনের মাধ্যমে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি ও মার্কিন টেলিভিশন চ্যানেল সিএনএনের প্রতিবেদনে এমন তথ্য জানানো হয়েছে।

যুক্তরাজ্যের বিজ্ঞান বিষয়ক সাময়িকী ‘ন্যাচার’এ সংক্রান্ত একটি নিবন্ধ প্রকাশ করেছে। আর ওই নিবন্ধটি মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটলের চিকিৎসাবিষয়ক এক সম্মেলনে উপস্থাপন করা হবে। তবে সঙ্গত কারণে রোগীর নাম পরিচয়, বয়স ও জাতীয়তা গোপন রাখা হয়েছে। তার নাম দেয়া হয়েছে ‘লন্ডন প্যাশেন্ট’ অর্থাৎ লন্ডনের রোগী।

প্রকাশিত নিবন্ধ অনুযায়ী বেশ কিছু বিজ্ঞানী জানিয়েছেন, লন্ডন প্যাশেন্ট নামের ওই রোগী এইডসের ভাইরাল ইফেক্শন থেকে এখন মুক্ত। আর তাদের এমন পদ্ধতি বিশ্বে ৩ কোটি ৭০ লাখ এইডস আক্রান্ত রোগীর ওপর প্রভাব ফেলবে। এমন সাফল্য মানুষকে এইডস নির্মূলে আশাবাদী করে তুলবে বলেও জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

এইডস নির্মূলে প্রথম যে সাফল্যাটি এসেছিল তাও আজ থেকে প্রায় দশ বছর আগে। প্রথম যে এইডস আক্রান্ত ব্যক্তির শরীর থেকে এইএচআইভি নির্মূল করা সম্ভব হয়েছিল তার নাম দেয়া হয়েছিল ‘বার্লিন প্যাশেন্ট।’ তাকেও অস্থিমজ্জা প্রতিস্থাপনের মাধ্যমে এইডস ভাইরাসমুক্ত করা হয়েছিল।

চিকিৎসক দলের নেতৃত্ব দিয়েছেন ইউনিভার্সিটি কলেজ লন্ডনের অধ্যাপক রবীন্দ্র গুপ্তা। তিনি রোগীর শরীর থেকে এইচআইভি ভাইরাস নির্মূলের খবরের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘আগের মতো পদ্ধতি ব্যবহার করে দ্বিতীয় একজনকে এইচআইভি থেকে উপশম করা সম্ভব হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘তবে এই সাফল্যের মানে এই নয় যে এইচআইভি থেকে আরোগ্য লাভের চিকিৎসাপদ্ধতি আবিষ্কৃত হয়েছে। এ ঘটনার মাধ্যমে প্রমাণিত হয়েছে, বিজ্ঞানীরা একদিন এইডস নির্মূল করতে পারবেন।’

অধ্যাপক রবীন্দ্র গুপ্তা আরও জানান, ‘আমি ও আমার সহকর্মীরা ওই ব্যক্তির অবস্থা পর্যবেক্ষণ করছি। তবে এখনই বলা সম্ভব হচ্ছে না যে তিনি সুস্থ হয়ে গেছেন। ২০০৭ সালে যে রোগীর শরীর থেকে এইচআইভি নির্মূল করা হয়েছিল তিনি এখন ভাইরাসমুক্ত।’

সময়ের ধারা নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com