সোমবার, ১৯ অগাস্ট ২০১৯, ০৪:০৯ অপরাহ্ন

বিশ্বম্ভরপুরে ঝুঁকিপুর্ণ পশুর হাটে নষ্ট হচ্ছে কবরস্থানের পবিত্রতা

বিশ্বম্ভরপুরে ঝুঁকিপুর্ণ পশুর হাটে নষ্ট হচ্ছে কবরস্থানের পবিত্রতা

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি : 

সুনামগঞ্জ জেলার বিশ্বম্ভরপুর উপজেলাধীন, সলুকাবাদ ইউনিয়ন, বাঘবেড় বাজারে পশুর হাট যে ভূমিতে রয়েছে, তার পাসে রয়েছে সামাজিক কবরস্থান, সেই কবরস্থানের পবিত্রতা নষ্ট হচ্ছে সামান্য একটা পশুর হাটে, সরেজমিনে দেখা যায়, যেমন নষ্ট হচ্ছে কবরস্থানের পবিত্রতা, তেমনি রয়েছে দুটি মামলা, জানাযায় বাঘবেড় গ্রামের শাহেদ আলীর ছেলে জামাল উদ্দিনের জায়গা দখল করে পশুর হাট বসিয়েছে এলাকার প্রভাবশালীরা, জামাল উদ্দিন নিষেধ করলেও মানছেনা ঐ প্রভাবশালী চক্র, পরে জামাল উদ্দিন নিরুপায় হয়ে আইনের আশ্রয় নেন, এবং একটি মামলা করেন। অন্যদিকে বাঘবেড় গ্রামের মৃত আব্দুল জব্বারের ছেলে শাহেদ আলীও একটি মামলা করেন, শাহেদ আলী জানান, যে কবরস্থানে পাসে আমারও জমি আছে ঐ জমির উপর পশুর হাট বসাতে চেয়েছে, কিন্তু আমি কবরস্থানে পবিত্রার কথা ভেবে রাজি হয়নি, পরে আমাকে অনেক হুমকি দেওয়া হয় , এবং এলাকার প্রভাবশালীরা জোরপূর্বক আমার জমি দখল করে পশুর হাট বসিয়েছে, পরে আমি নিরুপায় হয়ে আইনের আশ্রয় নিয়ে মামলা করি। মামলা দুটির নং ১০৩-২০১৫ ও ২২-২০১৭ আরও জানাযায় বাঘবেড় বাজারের চিন্হিত কিছু প্রভাবশালী মহল আছে যারা অবৈধ পশুর হাট বসিয়েছে, তাদের বিরুদ্ধে কেউ কথা বললে বিভিন্ন হুমকি ও মামলার শিকার হতে হয়, ঐ প্রভাবশালীদের ভয়ে কেউ কথা বলতে রাজি হয়না, এবং একজন ব্যাবসায়ী জানান তাদের গরু ছাগল বেচাকেনা করতে, অনেক কষ্ট হয়, হাটে যাওয়ার ভাল কোন সুবিধা না থাকায় এ কথা বলেন তিনি । বাজার ঘুরে দেখা যায়, বাঘবেড় বাজারে, যে পশুর হাট রয়েছে, তার উত্তর পাশে সমাজিক কবরস্থান রয়েছে, যার পবিত্রতা একান্ত প্রয়োজন। পশুর হাটে প্রবেশ করার মত তেমন কোন রাস্তার সুবিধা নেই। পশুর হাটের পশ্চিম পাশে রাস্তায়,(মরা নদী নামে একটি নদী রয়েছে) যাহার উপর বাঁশের চঠার একটি সাঁকু রয়েছে। পশুর পারাপার ও সাধারন জনগনের অনেক কষ্ট হয়, এবং ঝুঁকি রয়েছে। দক্ষিন পাশদিয়ে খাল রয়েছে ।পূর্ব পাশে কৃষি সবজি ক্ষেত রয়েছে, রাস্তার কোন সুবিদা নেই। উক্ত ভূমিতে পশুর হাটের কোন রকম পরিবেশ নেই বললেই চলে। সরকার যদি সেভূমিতে পশুর হাটের অনুমতি দেয়, যে কোন সময় আদালতের আদেশে পশুর হাট বন্ধ হয়ে যেতে পারে। যে কোন সময় বড় ধরনের অঘটন ঘটতে পারে বলে এলাকার জনগণ জানান। এবিষয়ে সলুকাবাদ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, রওশন আলীর সাথে যোগাযোগ করলে, তিনি বলেন যে ৫নং ওর্য়াডের সাবেক মেম্বার মোঃ জামাল উদ্দিন নয়ন ও গন্যমাণ্য ব্যাক্তিদের আবেদনের প্রেক্ষিতে, আমার পরিষদ থেকে ০৭-১১-২০১৭ ইং তারিখে রণবিদ্যা মৌজাস্থ ৩২ নং দাগের ভূমিতে একটি পশুর হাটের জন্য রেজুলেশন প্রদান করি, স্বারক নং- স,ই,প,২০১৭/১০২(১৫)। কিন্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসার কেন যে বিতর্কিত ভূমিতে খাস কালেকশন দিলেন, তা উনিই ভাল জানেন। তবে যে কোন সময় পশুরহাট নিয়ে বড় ধরনের ক্ষতি/ অঘটন সংগটিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে মনে করেন তিনি।

সময়ের ধারা নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com