বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১০:৪৯ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
ঢাবি সিনেট থেকে পদত্যাগ করলেন শোভন গর্ভবতী নারী ও শিশুর নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের সমাহারে অনন্য ‘কিডস এন্ড ফ্যামিলি’ ময়মনসিংহের ভালুকায় গার্মেন্টস শ্রমিককে ধর্ষণের চেষ্টা. আটক-২ ভালুকায় মহা-সড়কে নিষিদ্ধ ঘোষিত যানবাহন চলাচল বন্ধে সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন- হাইওয়ে ওসি পরিচয় গোপন করে চিকিৎসা নিতে গিয়ে বাস্তবতা দেখলেন ম্যাজিস্ট্রেট চাকুরী স্থায়ীকরণের দাবীতে পিচরেট কর্মচারীদের প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান শাস্তির বিধান রেখে চূড়ান্ত হচ্ছে ‘ডেইরি উন্নয়ন বোর্ড’ স্বর্ণজয়ী রোমানকে মিষ্টি মুখ করালেন প্রধানমন্ত্রী স্যামসাং অ্যাপলের ফোন ব্যবহারে ক্যান্সারের ঝুঁকি, আদালতে মামলা ধর্ষণের সময় স্বামীকে ধরে ফেললেন স্ত্রী
পাটকল শ্রমিকদের অবরোধে খুলনার সঙ্গে রেল যোগাযোগ বন্ধ

পাটকল শ্রমিকদের অবরোধে খুলনার সঙ্গে রেল যোগাযোগ বন্ধ

নয় দফা দাবিতে ৭২ ঘণ্টার ধর্মঘট ও প্রতিদিন চার ঘণ্টা করে রাজপথ-রেলপথ অবরোধের কর্মসূচি পালন করছেন খুলনার রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলের শ্রমিকরা।

মঙ্গলবার ভোর ৬টা থেকে খুলনা অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ত ৯টি পাটকলে শুরু হওয়া টানা ৭২ ঘণ্টার শ্রমিক ধর্মঘট আজও চলছে। এরই অংশ হিসেবে বুধবার সকাল ৮টা থেকে খুলনা-যশোর মহাসড়ক এবং রেলপথ অবরোধ করে রেখেছেন পাটকল শ্রমিকরা। এতে খুলনার সঙ্গে সারা দেশের রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে। দুপুর ১২টা পর্যন্ত এ অবরোধ চলবে বলে জানা গেছে।

শ্রমিকরা নতুন রাস্তা মোড়ে অবস্থান নিয়ে খুলনা-যশোর মহাসড়ক, নতুন রাস্তা মোড় থেকে সোনাডাঙ্গা বাসস্ট্যান্ড সড়ক, বিআইডিসি সড়ক এবং রেলপথ অবরোধ করে রেখেছেন। এছাড়া তারা বিক্ষোভ মিছিল, টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন ও সমাবেশ করছেন। আর এসব অবরোধে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীরা।

বকেয়া মজুরি পরিশোধ এবং মজুরি কমিশন বাস্তবায়নসহ ৯ দফা দাবিতে বাংলাদেশ পাটকল শ্রমিক লীগের ডাকে খুলনার ক্রিসেন্ট, প্লাটিনাম, খালিশপুর, দৌলতপুর, স্টার, ইস্টার্ন, আলিম এবং যশোরের জেজেআই ও কার্পেটিং জুট মিলের শ্রমিকরা এ আন্দোলন কর্মসূচি পালন করছেন।

শ্রমিকরা জানান, মঙ্গলবার রাতে খুলনা অঞ্চলের সকল পাটকল শ্রমিক নেতাদের বৈঠকে কর্মসূচি অব্যাহত রাখার ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

আন্দোলনরত শ্রমিক নেতারা বলেন, সরকার ঘোষিত জাতীয় মজুরি ও উৎপাদনশীলতা কমিশন-২০১৫ সুপারিশ বাস্তবায়ন, অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক কর্মচারীদের পি এফ গ্র্যাচুইটি ও মৃত শ্রমিকের বিমার বকেয়া প্রদান, টার্মিনেশন, বরখাস্ত শ্রমিকদের কাজে পুনঃবহাল, শ্রমিক-কর্মচারীদের নিয়োগ ও স্থায়ী করা, পাট মৌসুমে পাটক্রয়ের অর্থ বরাদ্দ, উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে মিলগুলোকে পর্যায়ক্রমে বিএমআরই করাসহ ৯ দফা দাবি বাস্তবায়নের আশ্বাস দিয়েছিল। কিন্তু আমাদের দাবিগুলো এখনও বাস্তবায়ন না হওয়ায় আমরা রাজপথে আবার নামতে বাধ্য হয়েছি।

পাটকল শ্রমিক নেতা সোহরাব হোসেন জানান, শ্রমিকরা ৭ থেকে ৯ সপ্তাহের মজুরি না পাওয়ায় মানবেতর জীবন-যাপন করছেন। তারা তাদের সন্তানদের লেখাপড়ার খরচ, ঘর ভাড়া দিতে পারছেন না। এ অবস্থায় বাধ্য হয়েই তারা আন্দোলনে নেমেছেন।

সময়ের ধারা নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com