সোমবার, ১৫ Jul ২০১৯, ০৪:৫৪ পূর্বাহ্ন

মুখ্যমন্ত্রীর হুঁশিয়ারির পর চিকিৎসকদের গণইস্তফা, পশ্চিমবঙ্গে অচল স্বাস্থ্যসেবা

মুখ্যমন্ত্রীর হুঁশিয়ারির পর চিকিৎসকদের গণইস্তফা, পশ্চিমবঙ্গে অচল স্বাস্থ্যসেবা

রোগীর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে জুনিয়র চিকিৎসকের ওপর হামলার পর টানা আন্দোলনের মুখে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে সরকারি হাসপাতালে স্বাস্থ্যসেবা পরিস্থিতি ক্রমেই জটিল আকার ধারণ করছে। বিশেষ করে, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চিকিৎসকদের ‘বহিরাগত’ উল্লেখ করে হুঁশিয়ারি দেওয়ার পর চিকিৎসকরা গণহারে ইস্তফা দিচ্ছেন।

এরই মধ্যে রাজ্যের বিভিন্ন হাসপাতালের ৯৭৩ জন চিকিৎসক দায়িত্ব থেকে পদত্যাগ করেছেন। তাঁরা সারা দেশব্যাপী আন্দোলনের ডাক দিয়েছেন। এর ফলে, সাধারণ রোগীদের ভোগান্তি আরো বাড়ছে, কিন্তু সমস্যার কোনো সমাধানসূত্র মিলছে না।

গত ১০ জুন কলকাতার নীলরতন সরকার (এনআরএস) মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রোগীর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে জুনিয়র চিকিৎসকদের মারধরের এ ঘটনা ঘটে। তারপর রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মন্তব্য করেছিলেন, ‘এনআরএসে বহিরাগতরা ঝামেলা পাকাচ্ছে এবং চিকিৎসকরা পদবি দেখে চিকিৎসা করান।’

এমন অবস্থায় পশ্চিমবঙ্গের জুনিয়র চিকিৎসকদের দাবি, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এনআরএস হাসপাতালে এসে তাঁর বক্তব্যের জন্য ক্ষমা চাইতে হবে। কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও অনড় নিজের অবস্থানে। তাই উদ্ভূত পরিস্থিতি কবে স্বাভাবিক হবে তা বোঝা যাচ্ছে না।

এদিকে পশ্চিমবঙ্গের চিকিৎসকদের এ আন্দোলনের পাশে দাঁড়িয়েছেন ভারতের অন্যান্য রাজ্যের চিকিৎসকরাও। দিল্লির অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্সেস (এইমস)-এর পক্ষ হতে আগামী ৪৮ ঘণ্টার ডেডলাইন দিয়ে জানানো হয়েছে, এর মধ্যে কোনো সমাধান না হলে অনির্দিষ্টকালের জন্য ‘ধরনায় বসবেন’ (অনশন) চিকিৎসকরা।

এদিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় কথা বলতে যায় রাজ্যের প্রবীণ ও বিশিষ্ট চিকিৎসকদের একটি দল। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্য প্রশাসনিক ভবন নবান্নে গিয়ে তারা বিষয়টির সুরাহা করার চেষ্টা করলেও নিজের অবস্থানে অনড় থাকেন মমতা।

অন্যদিকে, জুনিয়র চিকিৎসকরাও তাদের অবস্থানে অনড় থেকে জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রী তাঁর বক্তব্যের জন্য নিঃশর্ত ক্ষমা না চাইলে আন্দোলন থেকে পিছু হঠবেন না তাঁরা।

এদিকে কলকাতার ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ, এনআরএসসহ সব হাসপাতালের জরুরি বিভাগ খোলা থাকলেও নেই পর্যাপ্ত চিকিৎসক। জুনিয়র চিকিৎসকদের আন্দোলন ঘিরে কার্যত অচল হাসপাতালগুলো। এখন পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গের কলকাতাসহ বিভিন্ন জেলার হাসপাতালে চিকিৎসকদের পদত্যাগের সংখ্যা ৯৭৩ জনে পৌঁছেছে। আরো অনেক চিকিৎসক ইস্তফা দেওয়ার ইচ্ছে প্রকাশ করেছেন। ফলে ক্রমেই বাড়ছে পশ্চিমবঙ্গের স্বাস্থ্যসেবার সংকট।

সময়ের ধারা নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com