মঙ্গলবার, ১৬ Jul ২০১৯, ০৫:২৮ অপরাহ্ন

স্বামীকে আটকে রেখে নববধূকে ধর্ষণের চেষ্টা

স্বামীকে আটকে রেখে নববধূকে ধর্ষণের চেষ্টা

নীলফামারী প্রতিনিধি : নীলফামারীর ডিমলায় স্বামীকে আটকে রেখে এক নববধূকে ৫ বখাটে মিলে ধর্ষণের চেষ্টা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) রাতে উপজেলার টেপাখড়িবাড়ী ইউনিয়নের পূর্ব খড়িবাড়ি কলোনিপাড়ার তিস্তা নদী সংলগ্ন এলাকায় এই ঘটনা ঘটেছে।

এ ব্যাপারে শুক্রবার বিকেলে ওই নববধূ বাদী হয়ে ৫ জনের নাম উল্লেখ করে তাদের বিরুদ্ধে ডিমলা থানায় অভিযোগ দিয়েছেন।

চলতি বছরের ২৩ জুন টেপাখড়িবাড়ি ইউনিয়নের পূর্ব খড়িবাড়ি টাবুরচর এলাকার এক যুবকের সঙ্গে ওই নারীর বিয়ে হয়।

জানা গেছে বৃহস্পতিবার রাতে আত্মীয়ের বাড়িতে দাওয়াত খেয়ে স্বামীর সঙ্গে ওই বাড়ি ফিরছিলেন নববধূ। পথে তিস্তা নদী সংলগ্ন নালা পার হওয়ার সময় টেপাখড়িবাড়ি ইউনিয়নের পূর্ব খড়িবাড়ি কলোনিপাড়া নামক স্থানে ৫ বখাটে তাদের পথ রোধ করে। এ সময় ৩ জন স্বামীকে আটকে রাখে এবং অপর দুই জন নববধূকে নির্জন স্থানে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ সময় তার চিৎকার শুনে এলাকার লোকজন এগিয়ে আসলে বখাটেরা পালিয়ে যায়।

নববধূর অভিযোগ তারা বাড়ি ফেরার পথে কলোনি পাড়া গ্রামের মাহাবুব হোসেনের ছেলে রেজাউর ইসলাম (৩০), হারুন ইসলামের ছেলে শফিকুল ইসলাম (২৮), জাফুর মামুদের ছেলে আব্দুর রউফ (২৬), মশিয়ার রহমানের ছেলে গিয়াস উদ্দিন (২৭) ও মেনহাজ আলীর ছেলে মতিউর রহমান (২২) স্বামীকে আটকে রেখে তাকে তিস্তা নদী সংলগ্ন নির্জন স্থানে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে।

ডিমলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মফিজ উদ্দিন শেখ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সময়ের ধারা নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com