বৃহস্পতিবার, ১৫ অগাস্ট ২০১৯, ০৮:৩৪ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
ময়মনসিংহের ভালুকায় যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হলো জাতীয় শোক দিবস ভালুকায় যুবলীগ নেতার বাসাবাড়িতে অগ্নিকান্ডে ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়েছে ময়মনসিংহের ভালুকায় ডাকাতিয়া ইউনিয়ন অর্নাস এসোসিয়েশন আয়োজিত ঈদ পুনর্মিলনী ও সংবর্ধনা ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন ভেলাগুড়ী ইউপি চেয়ারম্যান মহির উদ্দিন সরকারের পাশাপাশি যুব সমাজকে ডেঙ্গু প্রতিরোধে এগিয়ে আসতে হবে- কাজিম উদ্দিন আহম্মেদ ধনু এমপি ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন এ্যাডভোকেট আঞ্জুমানআরা শাপলা ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ওসি মোস্তাফিজার রহমান ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবু সাঈদ ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন চন্দ্রপুর ইউনিয়নের কাজী শরিফুল ইউএনও রবিউল হাসানের ঈদ শুভেচ্ছা
বিভিন্ন স্কুলে ইসকনের কৃষ্ণ প্রসাদ বিতরণের প্রতিবাদ হাটহাজারীতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ ! 

বিভিন্ন স্কুলে ইসকনের কৃষ্ণ প্রসাদ বিতরণের প্রতিবাদ হাটহাজারীতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ ! 

মো.আলাউদ্দীন,হাটহাজারীঃ

আন্তর্জাতিক কৃষ্ণ ভাবনা মৃত সংঘ তথা ‘ইসকন’ তাদের ‘ফুড ফর লাইফ’ কর্মসূচীর আওতায় হিন্দু সম্প্রদায়ের রথযাত্রা উপলক্ষে চট্টগ্রামের বিভিন্ন বিদ্যালয়ে মুসলিম শিশু-কিশোরদের মাঝে হিন্দুত্ববাদের স্লোগান দিয়ে কৃষ্ণ প্রসাদ বিতরণের ও ভারতে মুসলমানদের গণপিটুনি-জয় শ্রীরাম শ্লোগানে বাধ্য করা ও ইসকনের উগ্র হিন্দুত্ববাদের উস্কানিমূলক আচরণের প্রতিবাদে বিশাল বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) আছরের নামাজের পর মুসলিম ছাত্র জনতা ঐক্য পরিষদ হাটহাজারী শাখার আয়োজনে ডাকবাংলো চত্বরে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
‌প্রতিবাদ সভার আহবায়ক মাওলানা এমরান সিকদারের সভাপতিত্বে ও মাওলানা কামরুল ইসলাম কাছেমী ও মুফতী মাসউদু রহমান চৌধুরীর সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন, হাটহাজারী মাদ্রাসার সিনিয়র মুহাদ্দিস,আল্লামা মুমতাজুল করিম (বাবা হুজুর।) বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, মাওলানা মীর মুহাম্মদ ইদ্রিস।
এক ধর্মের শিশুকে অন্য ধর্মের আচার চাপিয়ে দেয়া সাংবিধানিক অপরাধ দাবি করে সভায় বক্তারা এমন গর্হিত নিন্দনীয় কাজের কঠোর সমালোচনা করে এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান ।
হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ পুণ্যের ভাবনা থেকে তাদের দেবতার নামে উৎসর্গকৃত খাবারের অবশেষ এসব প্রসাদ আহার করে থাকে। এই প্রসাদ আহার করা মুসলমানদের জন্য হারাম। তারা এই ঘটনাকে মুসলিম ধর্মের উপর আঘাত বলে অবিহিত করে। এমন ঘটনা সাম্প্রদায়িক দাঙ্গাকে উস্কে দেবার আশংকা প্রকাশ করে বক্তারা বলেন, ইসকনের উগ্রবাদী হিন্দুরা হরে রাম হরে কৃষ্ণ বলে মন্দিরের প্রসাদ বিতরণ করে ভিডিওর মাধ্যমে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়ে কোটি কোটি মুসলমানের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হেনেছে। তাদের এহেন কাণ্ডে মুসলমানদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। আমরা এই উগ্রবাদী সংগঠনটিকে এমন কৃতকর্মের জন্য জাতীর কাছে প্রকাশ্যে অনুতপ্ত হওয়ার জোর দাবি জানাচ্ছি। অন্যথায় এ আন্দোলন সারা দেশে ছড়িয়ে পড়বে।  এছাড়াও প্রসাদ ভোগী স্কুল ছাত্রদের জমজমের পানি ও খেজুর খাওয়ানোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হয় উক্ত সমাবেশ থেকে।
এতে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জনাব আহছানুল্লাহ, মাওলানা নাছিম সাহেব, জনাব নুর মুহাম্মদ, মাওলানা হাফেজ আব্দুল মাবুদ,মাওলানা মহিউদ্দিন,মাওলানা আসাদ প্রমুখ।
উক্ত সমাবেশে বক্তারা বলেন, ৯০% মুসলিম অধ্যুষিত দেশে অবুঝ মুসলিম শিশু-কিশোরদের এভাবে “হরে কৃষ্ণ হরে কৃষ্ণ কৃষ্ণ কৃষ্ণ হরে হরে, হরে রাম হরে রাম রাম রাম হরে হরে, মাতাজি প্রসাদ কি জয়” শ্লোগান দেয়ানো চরম ধৃষ্টতার শামিল। মুসলিম শিশুদের পবিত্র মুখে এসব কুফুরী শব্দ উচ্চারণ করিয়ে কৌশলে ঈমান হরণের অপচেষ্টা চলছে।  তিনি বলেন, আজ তারা আমাদের কোমলমতি শিশুদেরকে প্রসাদের লোভে ফেলে ‘হরে কৃষ্ণ হরে রাম’ বলিয়েছে, কাল ভারতের মতো জোরপূর্বক ‘জয় শ্রীরাম’ বলতে বাধ্য করবে না এর কি নিশ্চয়তা আছে? বাংলাদেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষায় ইসকনকে নিষিদ্ধ করে তাদের সকল কার্যক্রম বন্ধ করতে হবে।  বক্তারা হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করে বলেন, অনতি বিলম্বে এই ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত সকল স্কুল কর্তৃপক্ষের সংশ্লিষ্ট অনুমতি দাতাদেরকে বিচারের আওতায় আনার পাশাপাশি ইসকনের যারা এই কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।  অন্যথায় মুলমানদের ঈমান আকিদা রক্ষার পাশাপাশি দেশের শান্তি-শৃঙ্খলা ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি অক্ষুণ্ন রাখার স্বার্থে এসব উগ্রবাদি সংগঠনের কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে তৌহিদী জনতা দূর্বার আন্দোলন গড়ে তুলতে বাধ্য হবে।
সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল ডাকবাংলো চত্বর থেকে শুরু হয়ে বাজারের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে মাদ্রাসা গেটে গিয়ে শেষ হয়।

সময়ের ধারা নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com