সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, ০২:৩৬ পূর্বাহ্ন

১৩৩ গ্রামে জন্ম নেয় না কন্যাসন্তান, কাকতলীয় নাকি অন্যকিছু?

১৩৩ গ্রামে জন্ম নেয় না কন্যাসন্তান, কাকতলীয় নাকি অন্যকিছু?

পরিসংখ্যান দেখে জেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য দফতরের চোখ কপালে ওঠার উপক্রম। দুন্ডা, ভাটওয়ারি ও নওগাঁও- ভারতের উত্তরকাশীর এই তিন ব্লকের আওতায় ১৩৩ গ্রাম। সরকারি তথ্য বলছে, তিন মাসে ২১৬ শিশুর জন্ম হয়েছে। কিন্তু এই নবজাতকদের মধ্যে একটিও কন্যাসন্তান নেই।

ঘটনা নেহাতই কাকতলীয় নাকি প্রশাসনের নজর এড়িয়ে, গোপনে নষ্ট করা হচ্ছে কন্যাভ্রূণ? এটাই এখন সরকারি কর্মকর্তাদের কাছে লাখ টাকার প্রশ্ন। নরেন্দ্র মোদির ‘বেটি বাঁচাও, বেটি পড়াও’-এর বিপরীত স্রোতে কি হাঁটছে উত্তরকাশী? উত্তরাখণ্ড স্বাস্থ্য দফতরের নথি অনুযায়ী, দুন্ডা ব্লকের ২৭ গ্রামে ৫১ শিশুর জন্ম হয়েছে। সবক’টিই ছেলে। ভাটওয়ারি ব্লকেও দেখা যাচ্ছে, ৪৯ নবজাতকের মধ্যে কোনো কন্যাসন্তান নেই। নওগাঁও ব্লকের ক্ষেত্রেও দেখা গেছে, ভূমিষ্ঠ সব শিশুই পুত্রসন্তান, মেয়ে নেই।

এর রহস্য উদঘাটনে বাধ্য হয়েই তদন্তে নামতে হচ্ছে জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের। উত্তরকাশী জেলা প্রশাসক আশিস চৌহান জানান, এর কারণ অনুসন্ধানে উল্লিখিত গ্রামগুলিতে খুব দ্রুতই একটি টিম পাঠানো হবে। ০-৬ বছরের মধ্যে ছেলে-মেয়ের অনুপাত দেখা হবে। যদি সত্যিই দেখা যায়, কন্যাশিশুর জন্মহার উল্লেখযোগ্য হারে কমেছে, তা হলে বিশদ অনুসন্ধান চালানো হবে।

সময়ের ধারা নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com