শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ১০:৪৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
ময়মনসিংহের ভালুকা পৌর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী সাংবাদিক- জামাল ৬৫ হাজার টাকা ঘুষ নিয়ে ১০ জেলেকে ছেড়ে দিলেন এএসআই! ময়মনসিংহের ভালুকায় গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে ইউপি সদস্যকে গণধোলাই পুলিশে শোপর্দ ৩৬ তম বিসিএস পুলিশ ব্যাচের সভাপতি ইমরুল, সা.সম্পাদক রাকিব সাংবাদিক পীর হাবিবুর রহমানের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের প্রতিবাদে রংপুরে মানববন্ধন রাজনীতি আমার পেশা নয় আমার নেশা আলহাজ্ব এম.এ ওয়াহেদ ময়মনসিংহের ভালুকায় বিশ্ব হাতধোয়া দিবস উপলক্ষে র‌্যালী আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত সূর্যসেন হলে কোনো ‘টর্চার সেল’ নেইঃ হল সংসদ জাপান ভয়াবহ তাইফুন এর সম্মুখীন হাটহাজারী উপজেলা চেয়ারম্যান গোল্ডকাপ ফুটবলের প্রতিনিধি সভা অনুষ্ঠিত 
লাফিয়ে বাড়ছে পেঁয়াজের দাম, আরও বাড়ার আশঙ্কা

লাফিয়ে বাড়ছে পেঁয়াজের দাম, আরও বাড়ার আশঙ্কা

ঢাকা: যেন লাফিয়ে বাড়ছে পেঁয়াজের দাম। ১ দিনের ব্যবধানে পাইকারী বাজারে কেজিতে আবারও পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ৫ টাকা। দাম বাড়ার কারণ হিসেবে বিক্রেতারা বলছেন, পাইকারী বাজারে দাম বাড়ার কারণেই খুচরা বাজারে বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে। এই দাম আরও বাড়তে পারে। আর ক্রেতারা বলছেন, তাদের নাভিশ্বাস দেখার যেন কেউ নেই।

শনিবার (২১ সেপ্টেম্বর) সকালে রাজধানীর বসুন্ধরা, রামপুরা ও শান্তিনগর বাজার ঘুরে এই চিত্র দেখা গেছে।

দেখা গেছে, দেশি পেঁয়াজ কেজিতে ৫ টাকা বেড়ে খুচরা বাজারে কেজি প্রতি বিক্রি হচ্ছে ৮৫ টাকায়। আর ভারতীয় পেঁয়াজও কেজিতে ৫ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকায়। অথচ শুক্রবার (২০ সেপ্টেম্বর) দুপুর পর্যন্তও দেশি পেঁয়াজ কেজি প্রতি বিক্রি হয়েছে ৮০ টাকা। আর ভারতীয় পেঁয়াজ কেজি প্রতি বিক্রি হয়েছে ৭৫ টাকা। ফলে সপ্তাহের ব্যবধানে ২ দফা বাড়লো পেঁয়াজের দাম।

পেঁয়াজের দাম বাড়ার বিষয়ে বসুন্ধরা কাঁচাবাজারের আঁখি জেনারেল স্টোরের মালিক নজরুল ইসলাম বলেন, আমদানি কম, পেঁয়াজের মৌসুমও শেষ। অপরদিকে চাহিদাও বেশি। সব মিলিয়ে পাইকারী বাজারে বেড়ে গেছে পেঁয়াজের দাম। ২০ সেপ্টেম্বর সকালেও যেখানে দেশি পেঁয়াজ পাইকারী থেকে ৭১ টাকা দরে কিনেছেন। আর ভারতীয় পেঁয়াজ ৬১ টাকা দরে কিনেছেন। সেখানে সন্ধ্যায় দেশি পেঁয়াজ ৭৬ টাকা আর ভারতীয় পেঁয়াজ ৬৬ টাকা দরে কিনতে হয়েছে। ফলে তাদেরই বা কি আর করার আছে। তবে সামনে পেঁয়াজের দাম আরও বাড়বে বলে তিনি মনে করেন।

এদিকে বসুন্ধরা কাঁচাবাজারে আসা বেসরকারি চাকুরিজীবী নাহিদা বেগম বলেন, গত সপ্তাহ থেকে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। গত সপ্তাহে যেখানে ৭৫ টাকায় দেশি পেঁয়াজ আর ভারতীয় পেঁয়াজ ৭০ টাকায় কিনেছেন সেখানে আজ কেজিতে ১০ টাকা বেশি। সরকারের উচিত বাজার মনিটরিং করা। নয়তো আমাদের মতো সামান্য বেতনে চাকুরি করাদের রাজধানীতে থাকাটা কষ্টসাধ্য হয়ে যাবে।

এদিকে, রামপুরা ও শান্তিনগর বাজার ঘুরেও পেঁয়াজের একই ঝাঁঝ দেখা গেছে।

শান্তিনগর বাজারের পাইকারী পেঁয়াজ বিক্রেতা রাশেদুর রহমান বলেন, মোকামে দাম বেশি হলে আমাদেরও বেশি দামে বিক্রি করতে হয়। গতকাল দেশি পেঁয়াজ কিনেছেন পাইকারী ৭৬ টাকা আর ভারতীয় ৬৬ টাকা। এর সাথে আনুসাঙ্গিক খরচ যোগ করলে কতো বিক্রি করব বলেন? সামনে দাম কমা নয় আরও বাড়বে। আমরা যেমন কিনি তেমনই বিক্রি করি। সুতরাং আমাদের দিকে নজর না দিয়ে পাইকারী ব্যবসায়ীদের দিকে সরকারের নজর দেওয়া উচিত।

এদিকে গত সপ্তাহের শুক্রবারও বিভিন্ন বাজারে যে পেঁয়াজের কেজি ৫৫ টাকা ছিল, রোববার তা এক লাফে ৭০-৭৫ টাকা হয়ে যায়। পেঁয়াজের এমন দাম বাড়ার প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার থেকে খোলাবাজারে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করে ট্রেডিং করপোরেশন অবস্থা বাংলাদেশ (টিসিবি)।

খোলা বাজারে পেঁয়াজ বিক্রির পাশাপাশি মঙ্গলবার পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে করণীয় ঠিক করতে সরকারি বিভিন্ন দফতর, আমদানিকারক ও ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বৈঠক করে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

বৈঠকের পর নতুন বাণিজ্য সচিব ড. মো. জাফর উদ্দিন এবং বাংলাদেশ ট্যারিফ কমিশনের সদস্য আবু রায়হান আল বিরুনি ঘোষণা দেন ২৪ ঘণ্টার মধ্যে পেঁয়াজের দাম কমবে। তবে দাম কমার পরিবর্তে বেড়েছে পেঁয়াজের দাম।

সময়ের ধারা নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com