বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ০৩:২৫ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
ইঞ্জিনিয়ার হয়ে দেশের জন্য কাজ করার স্বপ্ন ছিল আবরারের

ইঞ্জিনিয়ার হয়ে দেশের জন্য কাজ করার স্বপ্ন ছিল আবরারের

ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ে বিদেশে পাড়ি দিয়ে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার স্বপ্ন ছিল আবরার ফাহাদের। এরপর দেশে ফিরে দেশের উন্নয়নে অবদান রাখার স্বপ্ন বুনতেন আবরার ফাহাদ।

কিন্তু তার মৃত্যুতে সেই স্বপ্নেরও মৃত্যু ঘটল।

সোমবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গের সামনে দাঁড়িয়ে আপ্লুত কণ্ঠে নিহত বুয়েট শিক্ষার্থী আবরারের মামাত ভাই জহুরুল ইসলাম এমনটাই বলছিলেন সাংবাদিকদের।

জহুরুল ইসলাম বলেন, আবরার অনেক মেধাবী ছাত্র ছিল। এসএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়ে ঢাকার নটর ডেম কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিকে ভর্তি হয় সে। সেখানেও কৃতিত্বের সঙ্গে উত্তীর্ণ হয়ে বুয়েটের তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগে ভর্তি হয় আবরার।

তার মৃত্যুতে শুধু পরিবারের সদস্যদের মধ্যে নয়, এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

জহুরুল ইসলাম যোগ করেন, আবরারের মৃত্যুর সংবাদে পুরো কুষ্টিয়া স্তম্ভিত। আমরা স্বজনরা এখনও বুঝে উঠতে পারছি না যে কেন সে খুন হলো। তার তো কোনো শত্রুই ছিল না। খুবই ভালো স্বভাবের ছিল আবরার।

জহুরুল বলেন, বাড়িতে থাকাকালীন বাইরে খুব কম যেত। তার ধ্যান ছিল শুধু জ্ঞান অন্বেষনেই। পড়ালেখা নিয়ে মগ্ন থাকত বলেই পরিবারের সদস্য, আত্মীয়-স্বজন ছাড়া বাইরের লোকের সঙ্গে সেভাবে মিশত না। বইপড়া ছিল তার একমাত্র পছন্দের কাজ। পাঠ্যবইয়ের বাইরেও বিভিন্ন ধরনের বাংলা-ইংরেজি জ্ঞানের বই আবরারের সংগ্রহে রয়েছে।

আবরারের বাবা মোহাম্মদ বরকতুল্লাহ একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন, মা গৃহিণী। আবরারের ছোট ভাই ঢাকা কলেজে একাদশ শ্রেণির ছাত্র।

কুষ্টিয়ায় পারিবারিক কবরস্থানে আবরারকে দাফন করা হবে বলে জানিয়েছে তার পারিবারিক সূত্র।

সময়ের ধারা নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com