বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ০১:১৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
গাজায় ইসরাইলি বিমান হামলায় দুদিনে নিহত ১২

গাজায় ইসরাইলি বিমান হামলায় দুদিনে নিহত ১২

The father of Palestinian Zaki Ghanama, 25, mourns over his body at the morgue of a hospital in Beit Lahia in the northern Gaza Strip on November 12, 2019, following an Israeli strike. - Israel said it had carried out an air strike against militants preparing to launch rockets. The incident took place amid an escalation in violence between the two sides that followed an Israeli strike that killed an Islamic Jihad commander in the Gaza Strip. (Photo by ANAS BABA / AFP)

গাজা উপত্যকায় ইসরাইলি হানাদার বাহিনীর বিমান হামলায় বুধবার দুই ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন।

এতে গত দুদিনের উত্তেজনায় ১২ ফিলিস্তিনিকে প্রাণ দিতে হয়েছে বলে বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে বলা হয়েছে।

অবরুদ্ধ ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে গুপ্তহত্যা চালিয়ে ইসলামিক জিহাদের এক জ্যেষ্ঠ সামরিক কর্মকর্তাকে হত্যার পর উপত্যকাটিতে অব্যাহত হামলা চালিয়ে যাচ্ছে দখলদার রাষ্ট্র ইসরাইল।

ইহুদি রাষ্ট্রটির গণমাধ্যমের খবর জানিয়েছে, গাজা সীমান্তে অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করে শক্তি বাড়াচ্ছে তারা। এসব সেনাদের মধ্যে রয়েছে, আয়রন ডোম ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ইউনিটস, সামরিক গোয়েন্দা ও হোম ফ্রন্ট কমান্ডের সদস্যরা।

মঙ্গলবার সকাল থেকে শুরু হওয়া হামলায় এখন পর্যন্ত ১২ ফিলিস্তিনি নিহত ও আরও ৪৫ জন আহত হয়েছেন। ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাতে মিডল ইস্ট আইয়ের খবরে এমন তথ্য জানা গেছে।

নিহতদের অধিকাংশই বেসামরিক নাগরিক বলেও খবরে জানিয়েছে।

স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্য সূত্র বলেছে, উত্তর গাজায় ইন্দোনেশিয়ান হাসপাতালে তিনটি মরদেহ নিয়ে আসা হয়েছে। ইসরাইলি বিমান হামলায় তারা নিহত হয়েছেন।

তবে এক টুইটবার্তায় ইসরাইলি হানাদার বাহিনী দাবি করেছে, নিহত তিন ব্যক্তিই ইসলামি জিহাদের যোদ্ধা। তারা গাজা থেকে রকেট নিক্ষেপ করছিলেন।

তবে ইন্দোনেশিয়ান হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া তিনটি মরদেহই এই তিন ব্যক্তি কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

এর আগে অবৈধ ইহুদি রাষ্ট্রটির বিমান হামলায় ইসলামিক জিহাদ নেতা বাহা আবু আল-আত্তা ও তার স্ত্রী আসমা নিহত হয়েছেন।

এই হামলার পর গাজা থেকেও ইসরাইলে রকেট হামলা চালানো হয়েছে। সারাদিনে গাজা থেকে দুই শতাধিক রকেট ইসরাইলে আঘাত হেনেছে বলে দখলদার দেশটি দাবি করেছে।

তবে এসব রকেটের ৯০ শতাংশের বেশিই প্রতিরোধ করতে সক্ষম হয়েছে ইসরাইল ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা। কোনো ইসরাইলির হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

হোম ফ্রন্ট কমান্ডের সেনাদের সাধারণত সংকট ও যুদ্ধ পরিস্থিতিতে মোতায়েন করা হয়।

সময়ের ধারা নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com