বৃহস্পতিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২০, ০৫:২৩ পূর্বাহ্ন

টাকার জন্য বন্ধুদের দিয়ে মেয়েকে ধর্ষণ

টাকার জন্য বন্ধুদের দিয়ে মেয়েকে ধর্ষণ

দু’বছর ধরে প্রতি সপ্তাহে ধর্ষণ করা হয়েছে। ১২ বছর বয়সের কিশোরী জানিয়েছে, এই ধর্ষণকারীদের অনেকেই তার বাবার বন্ধু। আবার বেশ কয়েকজন অপরিচিতও ছিল। ওই কিশোরী বলছে, এই ঘটনার শুরু হয়েছিল যখন তার বাবা বাসায় বন্ধুদের মদ খেতে ডেকেছিল। মাতাল সেই মানুষগুলো তার বাবা-মায়ের সামনেই তাকে নিয়ে মজা করতো এবং গায়ে স্পর্শ করতো।

অনেক সময় কোন কোন পুরুষ তার মাকে নিয়ে কোনো রুমের মধ্যে চলে যেত। এরপর একদিন তার বাবা তাকে জোর করে তার এক বন্ধুর সঙ্গে তাকে একটি রুমে ঢুকতে বাধ্য করেন। এরপর তিনি বাইরে থেকে দরজা বন্ধ করে দেন।

বাবার সেই বন্ধুর হাতে তাকে ধর্ষিত হতে হয়। অচিরেই তার শৈশব একটা দুঃস্বপ্নে পরিণত হয়। তার বাবা নানা রকম পুরুষকে ফোন করতো। মেয়ের সঙ্গে থাকার জন্য তাদের সময় ঠিক করে দিত এবং সেসব পুরুষের কাছ থেকে অর্থ নিতো।

এরপর থেকে পালাক্রমে গত দু’বছরে মেয়েটিকে অন্তত ৩০ জন পুরুষ ধর্ষণ করেছে। গত ২০ সেপ্টেম্বর একজন শিক্ষকের কাছ থেকে তথ্য পেয়ে শিশুকল্যাণ কর্মকর্তারা মেয়েটিকে তার বিদ্যালয় থেকে উদ্ধার করে একটি আশ্রয় কেন্দ্রে নিয়ে আসে।

শিশুকল্যাণ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ডাক্তারি পরীক্ষায় ওই কিশোরী ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। এই ঘটনায় তার বাবাসহ চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ধর্ষণ, শিশুকে যৌন উদ্দেশ্যে ব্যবহার এবং যৌন হয়রানির অভিযোগ আনা হয়েছে। তাদের সবার জামিন আবেদন নাকচ করে দেয়া হয়েছে।

পুলিশ মেয়েটির বাবার পরিচিত আরও পাঁচজন ব্যক্তিকে খুঁজছে যাদের বিরুদ্ধে মেয়েটিকে ধর্ষণ এবং যৌন নিপীড়নের অভিযোগ রয়েছে। পরিবারটির পরিচিত ২৫ জন ব্যক্তির নাম ও ছবি দিয়ে একটি তালিকা তৈরি করে মেয়েটিকে দেখিয়েছেন তদন্তকারীরা।

সময়ের ধারা নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com