সোমবার, ০৬ এপ্রিল ২০২০, ০৭:৪৮ অপরাহ্ন

যশোরে শ্রীজা মেটাল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের শ্রমিকরা বেতন-ভাতা ও সুযোগ-সুবিধার দাবিতে আন্দোলন

যশোরে শ্রীজা মেটাল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের শ্রমিকরা বেতন-ভাতা ও সুযোগ-সুবিধার দাবিতে আন্দোলন

কল্যাণ রায়, যশোর (সদর থানা) প্রতিনিধি 

যশোর সদর উপজেলার রামনগর ইউনিয়নের শাহবাটি এলাকার শ্রীজা মেটাল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের শ্রমিকরা বেতন-ভাতা বৃদ্ধি ও বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধার দাবি নিয়ে ফ্যাক্টরির ভিতরে আন্দোলন করেন এবং সকাল থেকে কাজ বন্ধ করে মিছিল দেন। মঙ্গলবার সরজমিনে ঘুরে এ চিত্র দেখা মেলে। এসময় আন্দোলনরত শ্রমিকরা উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, যশোর সদরের রামনগর ইউনিয়নের শাহবাটি এলাকায় গড়ে ওঠা শ্রীজা মেটাল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডে ১৫০/২০০ শ্রমিক কর্মরত আছে। মালিকপক্ষ তাদের সাথে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন এবং দৈনিক ১৮০টাকা হাজিরায় সকাল ছয়টা সাতটা থেকে রাত ৮ টা পর্যন্ত জোর করে কাজ করান। ফ্যাক্টরিতে ১২থেকে ১৪ বছরের শিশু শ্রমিকদের ১৫০টাকা হারে কাজ করান এই ফ্যাক্টরির মালিক পক্ষ। এছাড়াও শ্রমিকদের বেতন বন্ধ রেখে কম বেতনে কাজ করানো হয়। কর্মরত অবস্থায় কোন শ্রমিক দুর্ঘটনার পড়ে তাহলে তাদের কোনো চিকিৎসার সুব্যবস্থা করানো হয় না। সরকারি ছুটির দিন, এমনকি ১৬ ই ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবসের দিনেও তাদেরকে ছুটি না দিয়ে জোর করে কাজ করানো হয়েছে বলে আন্দোলনরত শ্রমিকরা অভিযোগ করেন। সরজমিনে ঘুরে দেখা যায়, কারখানায় অগ্নি নি্র্বাপকের কোন ব্যবস্থা নেই। শ্রমিকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা তেমন কোন সুব্যবস্থা নেই। সেখানকার নারী শ্রমিক ডলি পারভীন, রাশিদা খাতুন, তাসলিমা খাতুন, শিবুদাসী, লাকি খাতুন, লিপি খাতুন, রিনা, টুম্পা, নার্গিস এবং রাশিদা কান্না কন্ঠে বলেন আমাদের সাথে মালিকপক্ষ অশালীন ভাষায় কথা বলে। তাছাড়াও প্রতি ঘন্টায় ৫ টাকা হারে নাস্তার টাকা দেওয়ার কথা থাকলেও তারা সেটাও দেয় না । শ্রমিকরা আরও বলেন আমরা আগুন গ্যাস নিয়ে কাজ করি কিন্তু কোন সেফটি বা সরঞ্জাম দেন না মালিকপক্ষ। এই বিষয়ে সৃজা মেটালের স্বত্বাধিকারী মোঃ ফারুক হোসেন সাথে কথা বললে তিনি জানান, শ্রমিকরা শুধু শুধু আন্দোলন করছেন। আমরা তাদের সকল প্রকার সুযোগ সুবিধা আমরা দিয়ে থাকি । শ্রমিকেরা বিনা কারনে আন্দোলনে অংশ নিয়েছে। এ আন্দোলনের কোন ভিত্তি নেই। অভিযোগের সত্যতা যাচাইকালে সরোজমিনে ঘুরে শ্রমিকদের সেফটি সামগ্রী দেখতে চাইলে তারা দেখাতে পারে নাই। কিন্তু মালিকপক্ষ বলেন যশোর ফায়ার ব্রিগেডের কর্মকর্তাবৃন্দ এখানে এসে পরীক্ষা করে গেছেন এবং শ্রম মন্ত্রণালয় থেকে কর্মকর্তা এসে সেগুলো পর্যবেক্ষণ করেছেন । আন্দোলনরত শ্রমিকদের একটাই দাবি, শ্রমিকদের স্বার্থ বজায় রেখে বেতন-ভাতা সহ সকল সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হোক।

সময়ের ধারা নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com