বৃহস্পতিবার, ০২ এপ্রিল ২০২০, ০৬:২৮ পূর্বাহ্ন

সভাপতির কাঠগড়ায় ক্রিকেটাররাই

সভাপতির কাঠগড়ায় ক্রিকেটাররাই

ক্রীড়া প্রতিবেদক : প্রথম ম্যাচে ১৪১ রান। পরের ম্যাচে আরো ৫ রান কম। দুয়েমিলে পাকিস্তানে মাহমুদ উল্লাহদের টি-টোয়েন্টি পারফরম্যান্স নিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান এমন উপসংহারই টেনে দিচ্ছেন যে, ‘একটি জিনিস স্পষ্ট, ১৩০-৪০ রান করে কারো সঙ্গেই জেতা সম্ভব নয়।’

পারফরম্যান্সের যখন এই অবস্থা, তখন প্রলয় ঘণ্টা বাজানোরও সময় হয়ে গেছে বলে মনে করছেন তিনি। অক্টোবর-নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠেয় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রস্তুতি শুরু করতে পাকিস্তান গিয়ে বাংলাদেশ দলের বাজে ব্যাটিং প্রদর্শনীর পর তাই নাজমুলের মনে হচ্ছে এটি ‘সামথিং ভেরি সিরিয়াস ইস্যু’।

গতকাল ধানমণ্ডিতে নিজের কর্মস্থল বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসের রিসেপশনে দাঁড়িয়ে সংবাদমাধ্যমকে বললেন, ‘দ্বিতীয় ম্যাচে নাঈম (শেখ) যখন আউট হয়ে গেল, তখন লিটন-সৌম্যকে না নামিয়ে হঠাৎ করে দেখি মেহেদীকে নামানো হয়েছে। আমার জানা মতে যার খেলার কথা আরো পরে। ছয়ে খেলার কথা আফিফের। ওরা কেন তিন-চারে (আসলে আফিফ খেলেছেন পাঁচ নম্বরে, লিটন চারে), এই প্রশ্নটি আমি করেছিলাম। পরীক্ষা-নিরীক্ষা কিনা আমি জানি না।’

যা-ই হয়ে থাকুক, বিষয়টি বোধগম্য নয় নাজমুলের, ‘আমার এটিকে যৌক্তিক বলে মনে হয়নি। মানে তামিম, লিটন ও নাঈমের মধ্যে দুজন ওপেন করবে আর একজন তিনে খেলবে—এ রকমই হওয়ার কথা। তার ওপর চারে যেহেতু মুশফিক নেই, রিয়াদ (মাহমুদ উল্লাহ) খেলতে পারে। কারণ ওর খুব শখ ওপরে খেলা। কিন্তু এই সিরিজে গিয়ে দেখি রিয়াদ পারলে একেবারে শেষে নামে (দ্বিতীয় ম্যাচে ছয়ে নামলেও প্রথমটিতে চারে নেমেছিলেন অধিনায়ক)। এই জিনিসগুলোই জিজ্ঞেস করেছিলাম ব্যাপার কী? সব আপনাদের বলা যাবে না। কোচের সঙ্গেও বসতে হবে।’

উইকেট ভালো ছিল না বলে তাঁদের মন্তব্যে বিরক্ত বিসিবি সভাপতি পাল্টা কাঠগড়ায় দাঁড় করালেন ব্যাটসম্যানদেরই, ‘আমরা টস জিতে কেন আগে ব্যাটিং নিলাম? ওরা আগে বলেছে ব্যাটিং পিচ সে জন্য। খেলা শেষে বলছে (ওরকম উইকেটে) ব্যাটিং করা কঠিন। বুঝলাম না। তার মানে কি ওরা পিচ বুঝতে পারছে না। ওরা যদি বলে আমাদের পিচ বুঝতে অসুবিধা হচ্ছে, তাহলেও তো আমরা সাহায্য করতে পারি। এটি নিয়েও আলাপ করা দরকার।’

ওয়ানডে বিশ্বকাপের পর থেকে যে খারাপ সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে জাতীয় দল, তাঁর পেছনেও সম্ভবত তারকা ক্রিকেটারদেরই দায় দেখছেন বিসিবি সভাপতি। না হলে ব্যক্তিগত কারণে ভারত সফর থেকে তামিম ইকবালের সরে দাঁড়ানো এবং নিরাপত্তা উদ্বেগের কারণে মুশফিকুর রহিমের পাকিস্তান না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে তিনি প্রশ্ন তুলবেন কেন, ‘হঠাৎ করে বললে আমাদের জন্য অসুবিধা। আমাদের আগে থেকে জানতে হবে। আগে মানে অন্তত ছয় মাস।’

এই সিরিজটি যে পাকিস্তানেই হবে, ছয় মাস আগে সে নিশ্চয়তাও ছিল না। আবার এই সফর নিয়ে দেন-দরবার চলার সময়ও নাজমুল বলেছিলেন, ‘মুশফিক শুরু থেকেই আগ্রহী নয়।’ কাজেই হুট করেই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মুশফিক, বলার উপায় নেই তাও। তবু নাজমুল বলছেন, ‘একটি ছেলেকে তো হঠাৎ এক সিরিজে পাঠানো যায় না। এর মধ্যে সাকিব নেই। তামিমকে দুই সিরিজে পাওয়া যায়নি। এখন আবার মুশফিক নেই। স্বাভাবিকভাবেই আমরা প্রস্তুত ছিলাম না।’

সময়ের ধারা নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com