বৃহস্পতিবার, ০৪ Jun ২০২০, ১১:৫৯ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
স্মার্টফোন বলে দেবে আশপাশে কতজন করোনা রোগী, অপশনটি অ্যাপ চালু করুন হাঁটু পানিতে নেমে ধান কেটে দিল ছাত্রলীগ লক্ষীপুরে জোরপূর্বক পৈত্রিক সম্পত্তি দখল চেষ্টার অভিযোগ-সময়ের ধারা লক্ষ্মীপুরে নতুন করে ১১৯ জনের টেস্ট করে ২২ জনের করোনায় পজেটিভ-সময়ের ধারা জালালপুর ইকো রিসোর্ট এ কম্ব্যাটিং কোভিট ১৯ এর উপর কর্মশালা হরিপুরে এসএসসি পরীক্ষায় ফেল করায় আত্মহত্যা নিকলী হাওর আর জালালপুর ইকো রিসোর্ট এর ভ্রমণ গদ্য লক্ষ্মীপুরে করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত ব্যক্তির লাশ দাফন করলো সবুজ বাংলাদেশ ইনাফা-সময়ের ধারা কটিয়াদীতে ইসাহাক ভূঁইয়া ফাউন্ডেশন ও জালালপুর ইকো রিসোর্টের উপহার সামগ্রী প্রদান ফরিদপুরে জেলার ভাংগায় সাংবাদিকদের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয় ঈদ পূন:মিলনী অনুষ্ঠান
জাহাজভাড়া বাড়ল পণ্য পরিবহনে

জাহাজভাড়া বাড়ল পণ্য পরিবহনে

সমুদ্রপথে কনটেইনারে পণ্য পরিবহন ভাড়া বাড়িয়েছে বিদেশি জাহাজ কম্পানিগুলো। গত ১ জানুয়ারি থেকে ‘লো সালফার সারচার্জ’ (এলএসএস) নামের বাড়তি মাসুল যোগ করায় ভাড়া বেড়ে গেছে, যা বাংলাদেশ থেকেও আদায় শুরু করেছে।

ভাড়া বেড়ে যাওযায় বর্তমানে পণ্যভর্তি একটি কনটেইনার পরিবহনে বাড়তি ৫৬ মার্কিন ডলার গুনতে হচ্ছে ব্যবসায়ীদের। অর্থাৎ চট্টগ্রাম-সিঙ্গাপুর রুটে একটি ২০ ফুটের কনটেইনারে আগে সর্বনিম্ন ভাড়া ছিল ১৪০ মার্কিন ডলার। এখন দিতে হচ্ছে ১৯৬ মার্কিন ডলার। আমদানি ও রপ্তানি পণ্যভর্তি প্রতিটি কনটেইনার পরিবহনে ভাড়া বাড়ল ৪০ শতাংশ। তবে এটা উঠানামা করতে পারে।

জাহাজভাড়া বাড়ায় আমদানিতে এই বাড়তি খরচ পণ্যের দামের সঙ্গে যোগ হবে। অন্যদিকে রপ্তানির ক্ষেত্রে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা চাপে পড়বেন। কারণ বিদেশি ক্রেতারা বাড়তি এ খরচ তাঁদের কাছ থেকে আদায় করে নেবেন। অবশ্য বাড়তি জাহাজভাড়ার দায় পুরোটাই চাপবে ভোক্তার ওপর।

জাহাজ কম্পানি ও কনটেইনার লাইনগুলো বলছে, বিশ্বের সমুদ্রপথে চলাচলকারী জাহাজে জ্বালানি তেল ব্যবহারে সালফারের মাত্রা দশমিক ৫ শতাংশের নিচে রাখা বাধ্যতামূলক করেছে ইন্টারন্যাশনাল মেরিটাইম অর্গানাইজেশন (আইএমও)। গত ১ জানুয়ারি থেকে এই তেল দিয়ে জাহাজ চলছে; এ কারণে জ্বালানি খরচ বেড়ে যাওয়ায় এলএসএস নামের এই মাসুল আদায় ছাড়া কোনো বিকল্প নেই।

জানতে চাইলে বিদেশি শিপিং কম্পানি গ্যালাক্সি বাংলাদেশ লিমিটেডের হেড অব অপারেশনস মুনতাসির রুবাইয়াত কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আইএমও নির্দেশনা মানতে গিয়ে বাড়তি দামে জ্বালানি তেল কিনতে হচ্ছে; এতে জাহাজ পরিচালন ব্যয় অনেক বেড়েছে। হুট করে সব খরচ চাপিয়ে দিলে ট্রেড (বাণিজ্য) তো চাপে পড়ে যাবে। তাই দেশের ট্রেডের স্বার্থে একসঙ্গে ভাড়া না বাড়িয়ে ধাপে ধাপে বাড়ানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।’ তিনি বলছেন, এলএসএস স্থির নয়, প্রতি মাসে জ্বালানি তেলের দাম বাড়া-কমার ওপর এলএসএস উঠানামা করবে, তাই ভাড়াও কমবেশি হবে। জ্বালানি তেলের

আন্তর্জাতিক বাজারের প্রবণতা অনুযায়ী আগামী মার্চ মাস থেকে মাসুল আরো কমে আসবে; তখন ভাড়া আরো সহনীয় হবে।

জানা গেছে, চট্টগ্রাম-সিঙ্গাপুর রুটে পণ্য পরিবহনে একটি ২০ ফুট কনটেইনারের ভাড়া ১৪০ থেকে ১৫০ মার্কিন ডলার; নতুন জ্বালানি তেল ব্যবহারে বাধ্যবাধকতার কারণে এখন দিতে হচ্ছে ১৯৬ মার্কিন ডলার। পণ্যভর্তি কনটেইনারে এলএসএস মাসুল ৫৬ মার্কিন ডলার, আর খালি কনটেইনার পরিবহনে মাসুল ২৮ মার্কিন ডলার।

দেশীয় শিপিং এজেন্টরা বলছেন, আইএমও নির্দেশনার আগে ৩.৪ শতাংশ সালফারযুক্ত জ্বালানি তেলের দাম ছিল প্রতি টন ৪০০ থেকে ৪৫০ মার্কিন ডলার; আর ১ থেকে ১.৫ শতাংশ সালফারযুক্ত জ্বালানি তেলের দাম ৫৩০ থেকে ৫৮০ মার্কিন ডলার। দশমিক ৫ শতাংশ সালফারযুক্ত জ্বালানি তেলের দাম ৬৮৭ মার্কিন ডলার। এতে চট্টগ্রাম-সিঙ্গাপুর-চট্টগ্রাম রুটে একটি জাহাজে জ্বালানি তেল বাবদ খরচ বেড়েছে ৪০ হাজার মার্কিন ডলার।

বিশ্বব্যাপী সমুদ্রপথে দূষণরোধে আইএমও যে উদ্যোগ নিয়েছে, এর দায় পুরোটাই বহন করতে হবে ভোক্তাদের।

জানতে চাইলে রিজেন্ট টেক্সটাইলসের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর সালমান হাবিব কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘এলএসএস নিয়ে আগে থেকেই আতঙ্কে ছিলেন রপ্তানিকারকরা; সম্প্রতি করোনাভাইরাসের কারণে আতঙ্ক আরো বাড়ল। বিদেশি ক্রেতারা নিঃসন্দেহে এই মাসুল আমাদের লভ্যাংশ থেকে আদায় করে নেবে। শেষ পর্যন্ত ব্যবসায় খরচ বাড়বে।’

এদিকে দশমিক ৫ শতাংশ সালফারযুক্ত জ্বালানি তেল ব্যবহারের বাধ্যবাধকতা থাকায় চট্টগ্রাম বন্দর ও জলসীমায় জ্বালানি তেল বিক্রি কমে গেছে। বিষয়টি নিশ্চিত করে জ্বালানি তেল সরবরাহকারীদের সংগঠন বাংলাদেশ বাংকার অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক আবদুল রাজ্জাক কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আইএমও নির্দেশিত জ্বালানি তেল এই মুহূর্তে দেশে নেই। ফলে বিদেশি জাহাজগুলো বাইরে থেকেই ওই তেল নিয়ে আসছে। আগের তেল ব্যবহার করে কোনো জাহাজ বিদেশের বন্দরে ভিড়লে আটকে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই আমাদের তেল বিক্রি কমে গেছে। নতুন ধরনের তেল না আসা পর্যন্ত এই ধারা অব্যাহত থাকবে।’

সময়ের ধারা নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com