বৃহস্পতিবার, ০৯ এপ্রিল ২০২০, ০৩:৫৭ অপরাহ্ন

করোনা আতঙ্কে চুরমার বাসর রাতের স্বপ্ন!

করোনা আতঙ্কে চুরমার বাসর রাতের স্বপ্ন!

করোনাভাইরাস আতঙ্কে কাঁপছে সারা দেশ। করোনা আতঙ্ক বিয়ের পিঁড়ি পর্যন্তও হানা দিচ্ছে। এমনই একটি ঘটনা ঘটেছে কক্সবাজারের সীমান্ত উপজেলা উখিয়ায়। সেখানে বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে হানা দিয়ে উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বিয়ের পিঁড়ি থেকেই বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছেন প্রবাসী বর ও নববধূকে।

শুক্রবার ঘটনার বিবরণ দিয়ে উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. নিকারুজ্জামান কালের কণ্ঠকে বলেন, কিছুক্ষণ পরেই বর-বধূ ঘরে ফিরে বাসর রাতের স্বপ্ন দেখেছিলেন। কিন্তু তাদের সেই স্বপ্ন আমাকে অত্যন্ত নির্মমতার সঙ্গে চুরমার করে দিতে হয়েছে। এমন কাজটিতে আমিও মনে কষ্ট পেয়েছি। তারপরও জাতির স্বার্থে করতে হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জানান, উখিয়া উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নের ডেইল পাড়া গ্রামের এক প্রবাসী যুবক ঘরে ফিরেই মাত্র কয়েকদিনের মাথায় বসেন বিয়ের আসরে। আগেই পাত্রী ঠিক করা ছিল। বিদেশ থেকে ফিরে আসার পর অন্তত ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার কথা থাকলেও তা অমান্য করেই বিয়ের আয়োজন করা হয়।

বিদেশ ফেরত পাত্রের বিয়ে বলে কথা! বিয়ে অনুষ্ঠানও ছিল বেশ জমকালো। এমন বিয়ে অনুষ্ঠানের খবর পেয়ে ইউএনও সাথে পুলিশ নিয়ে পৌঁছে যান অনুষ্ঠানস্থলে। তিনি গিয়ে দেখেন, অতিথিদের খাবার-দাবার পর্ব শেষ। এমনকি কাজি বিয়েও পড়িয়ে দিয়েছেন। এবার নববধূকে নিয়ে বরের ঘরে ফেরার পালা। বরের হাতেও সময় কম। মধ্যপ্রাচ্যের করোনা আক্রান্ত একটি দেশে তিনি চাকরি করেন। স্বল্প সময়ের মধ্যেই আবার ফিরেও যাবেন।

বাসর ঘরে বসার সুযোগ না দিয়েই ইউএনও তাদের থামালেন। এরপর গ্রামের সর্দ্দার ডেকে বসলেন বিষয়টি ফয়সালা করতে। শেষ পর্যন্ত কনে পক্ষ মুচলেখা দিয়ে নিশ্চিত করলেন তাদের কনেকে দুই সপ্তাহ পর্যন্ত তাদের ঘরে রাখবেন। অপরদিকে বর পক্ষও অনুরূপ সিদ্ধান্ত জানালেন তাকে (বর) দুই সপ্তাহ ঘরে কোয়ারেন্টিনে রাখা হবে।

উখিয়া উপজেলায় গতকাল পর্যন্ত ২৯ জন বিদেশফেরত ব্যক্তি হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন বলে ইউএনও জানিয়েছেন। সেই সঙ্গে রোহিঙ্গা শিবিরে একজন অস্ট্রেলিয়াফেরত রোহিঙ্গাও শিবিরের এক হাসপাতালে কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন বলে জানান তিনি।

সময়ের ধারা নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com