বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ০৪:০২ পূর্বাহ্ন

12
বর্ণবৈষম্যের শিকার হয়েছেন বলে দাবি প্যারা অলিম্পিয়ান লিপারের

বর্ণবৈষম্যের শিকার হয়েছেন বলে দাবি প্যারা অলিম্পিয়ান লিপারের

13

টোকিও অলিম্পিকে অংশগ্রহণের অনুমতি দেয়া হয়নি যুক্তরাষ্ট্রের প্যারাঅলিম্পিয়ান ব্ল্যাক লিপারকে। আন্তর্জাতিক ক্রীড়া আদালত এই সিদ্ধান্ত দিয়েছে। তাদের দাবি, লিপার অলিম্পিকের ট্র্যাকে যে কৃত্রিম পা ব্যবহার করবেন তাতে উচ্চতার দিক দিয়ে অন্যান্যদের তুলনায় বেশী সুবিধা পাবেন। তাই তাকে অনুমতি দেয়া হয়নি। এদিকে, এই সিদ্ধান্তকে অযৌক্তিক বলে মন্তব্য করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের এই দৌড়বিদ। বর্ণবৈষম্যের শিকার হয়েছেন বলেও দাবি করেছেন। তবে সিদ্ধান্তের বিপক্ষে আপিলের সুযোগ রয়েছে এই প্যারাঅলিম্পিয়ানের।

দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক বিশ্বসেরা প্যারাঅলিম্পিয়ান অস্কার পিস্টোরিয়াস। সবাইকে অবাক করে দিয়ে ২০১২ লন্ডন অলিম্পিকে জায়গা করে নেন তিনি। কৃত্রিম পা নিয়ে বিশ্বসেরা অ্যাথলিটদের সঙ্গে লড়াই করেছিলেন পিস্টোরিয়াস।

সে সময় পিস্টোরিয়াসকে দেখে অন্যান্য প্যারাঅলিম্পিয়ানরাও অনুপ্রাণিত হন। যেমনটা হয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের ব্ল্যাক লিপার। কিন্তু তার জন্য হয়ত পথটা এতটা সহজ নয়। ইতোমধ্যেই তাকে টোকিও অলিম্পিকে অংশগ্রহণের অনুমতি দেয়নি আন্তর্জাতিক ক্রীড়া আদালত।

তাদের দাবি, লিপার অলিম্পিক ট্র্যাকে যে কৃত্রিম পা ব্যবহার করবেন, তাতে দৌড়ের সময় উচ্চতার দিক দিয়ে অন্যান্যদের তুলনায় বেশী সুবিধা পাবেন। তাই অলিম্পিকের জন্য তাকে অযোগ্য বলে দিয়েছে ক্রীড়া আদালত। এদিকে, কিছুতেই এই সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারছেন না লিপার।

প্যারা অলিম্পিয়ানের দৌঁড়বিদ ব্ল্যাক লিপার বলেন, যুক্তরাষ্ট্র এই সিদ্ধান্তের সঙ্গে আমি মোটেও একমত নই। ৫ ফুট ৯ হই বা ৬ ফুট হই, উচ্চতায় কিছু আসে যায় না। আমার সাথে পনেরজন ককেশিয়ান ও পনেরজন এশিয়ানও টেস্ট করানোর সময় ছিলো। তারা আমার থেকেও উচ্চতায় বেশী। কিন্তু এরকম সিদ্ধান্ত শুধু আমার ক্ষেত্রেই হয়েছে। এদিকে, আদালতের রায়ের মাধ্যমে বর্ণবৈষম্যের শিকার হয়েছেন বলেও দাবি করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের এই দৌড়বিদ।

ব্ল্যাক লিপার বলেন, যুক্তরাষ্ট্র আমি জানি না আমার মতো আর কতজন এমন অযৌক্তিক সিদ্ধান্তের শিকার হয়েছে। কিসের ভিত্তিতে তারা এই সিদ্ধান্ত নিলো? গায়ের রঙের ভিত্তিতে? আর কতবার এরকম পরিস্থিতির শিকার হতে হবে আমাকে? ২০২০ সালে এসেও আমাকে বলতে হচ্ছে যে একজন কৃষ্ণাঙ্গ হিসেবে আমি ক্লান্ত ও বিধ্বস্ত।

এদিকে, হার মানতে নারাজ যুক্তরাষ্ট্রের এই দৌড়বিদ। তার বিশ্বাস অলিম্পিকের মঞ্চে তিনি দৌড়াতে পারবেন। আর সেজন্যই লড়াই করে যাবেন সিদ্ধান্ত পরিবর্তন না হওয়া পর্যন্ত।

লিপার আরও বলেন, যুক্তরাষ্ট্র আমার মনে হয়,আমার জন্ম শুধু ট্র্যাকে দৌঁড়ানোর জন্যই হয়েছে। আমি কোনভাবেই হার মানবো না। শেষ পর্যন্ত তাদের সিদ্ধান্তের বিপক্ষে লড়াই করে যাবো।তবে, ২০২১ সালের জুলাইয়ে টোকিও অলিম্পিক শুরু হবার আগ পর্যন্ত আন্তর্জাতিক ক্রীড়া আদালতের সুপ্রিম কোর্টে আপিল করার সুযোগ পাবেন যুক্তরাষ্ট্রের লিপার।

সময়ের ধারা নিউজটি শেয়ার করুন

বিজ্ঞাপন

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com