বৃহস্পতিবার, ২২ অগাস্ট ২০১৯, ১১:১৬ অপরাহ্ন

রাজকীয় বিয়ে হলো জমকালো আয়োজনে

রাজকীয় বিয়ে হলো জমকালো আয়োজনে

নিজেস্ব প্রতিবেদন :
জমকালো আয়োজনে ব্রিটিশ রাজপুত্র প্রিন্স হ্যারি ও সাবেক মার্কিন অভিনেত্রী মেগান মার্কেলের রাজকীয় বিয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে গতকাল শনিবার। এই বিয়ে নিয়ে কেবল যুক্তরাজ্য নয়, কৌতুহল ছিল বিশ্বজুড়েই। তাই কোটি কোটি মানুষ টেলিভিশনে সম্প্রচারিত হওয়া এই অনুষ্ঠান প্রত্যক্ষ করে। ব্রিটিশ রাজপরিবারের ইতিহাসে অনন্য এক জাকজমকপূর্ণ আয়োজনের মধ্য দিয়ে এদিন পরস্পরের জীবনসঙ্গী হলেন হ্যারি ও মেগান। সেন্ট জর্জ চ্যাপেলে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ ও অভিজাত ৬০০ অতিথির উপস্থিতিতে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন তারা। রাজপরিবারের এই নতুন দম্পতি এখন থেকে পরিচিত হবেন ডিউক ও ডাচেস অব সাসেক্স হিসেবে।

 

এই বিয়ে উপলক্ষ্যে গত কয়েকদিন ধরেই রাজপরিবারে ছিল রীতিমতো সাজ সাজ রব। মহড়ার পর মহড়া অনুষ্ঠিত হয়। বিয়েপর্ব শুরুর অনেক আগে থেকেই দলে দলে অতিথিরা অনুষ্ঠানস্থলে আসতে শুরু করেন। সাধারণ দর্শকরাও উইন্ডসর ক্যাসেলের মাঠে জড়ো হন। তাদের কৌতুহল ছিল হ্যারির হবুবধু মেগানকে ঘিরে। এরপর বিয়ের জন্য সাদা ধবধবে পোশাকে গির্জায় হাজির হন মেগান। আগে থেকেই সেখানে উপস্থিত ছিলেন বর প্রিন্স হ্যারি এবং তার ভাই ও বেস্ট ম্যান প্রিন্স উইলিয়াম। কনের বিয়ের পোশাক ধরে ছিল উইলিয়ামের ছেলে প্রিন্স জর্জ। বাবা অসুস্থ থাকায় রীতি ভেঙে হবু শ্বশুর প্রিন্স চার্লসের হাত ধরে বিয়ের মঞ্চে আসেন মেগান। এরপর মঞ্চে উঠে সেন্টারবুরির যাজক জাস্টিন উইলবি তাদের বিয়ে পড়ান।

 

বিয়ের শপথে দু’জন একে অন্যের অবিচ্ছেদ্য অংশ হবার প্রতিজ্ঞা করে তারা বলেন, ভালো কিংবা মন্দ সময়ে, প্রাচুর্যে কিংবা দারিদ্রে, সুস্থ্য কিংবা অসুস্থ্য অবস্থায় আমাদের বন্ধন অটুট থাকবে। মৃত্যুই কেবল আমাদের পৃথক করতে পারবে। বিয়ের শপথের পর বর ও কনে একটি রেজিস্টারে স্বাক্ষর করেন।

 

ব্রিটিশ ডিজাইনার ক্লেয়ার ওয়েইট কেলারের ডিজাইনকৃত করা একটি পোশাক পরে বিয়ে করেন মেগান। অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়া অতিথিদের মধ্যে অপরাহ উইনফ্রে, জর্জ ও আমল ক্লুনি, ডেভিড ও ভিক্টোরিয়া বেকহ্যাম, স্যার এল্টন জন প্রমুখ প্রখ্যাত ব্যক্তিরা ছিলেন। প্রিন্স জর্জ ও প্রিন্সেস শার্লটসহ ১০টি বালক-বালিকা কনে মেগানের সহচর ও সহচরী হিসেবে ছিল। কনের মাথায় ছিল রানি ম্যারির হীরা খচিত টিয়ারা, যা রানি তাকে ধারে পরতে দিয়েছিলেন। স্বচ্ছ সাদা একটি পাঁচ মিটার দৈর্ঘ্যের ওড়নায় কনের মুখমণ্ডল ঢাকা ছিল। ওড়নাটিতে কমনওয়েলথভুক্ত সব দেশের একটি করে ফুলের নকশা করা ছিল।

 

জানা গেছে, স্বাস্থ্যগত কারণে মেগানের বাবা টমাস মার্কেল বিয়ের অনুষ্ঠানে থাকতে না পারায় তার স্থলে প্রিন্স চার্লস তাকে সঙ্গে নিয়ে গির্জার করিডোর ধরে হেঁটে আসেন। ব্রিটিশ গণমাধ্যম জানায়, টমাস ক্যালিফোর্নিয়ায় বসে টিভিতে এই বিয়ে দেখেছেন। অনুষ্ঠানে কনের পরিবারের পক্ষ থেকে একমাত্র তার মা ডোরিয়া উপস্থিত ছিলেন।

 

সিএনএন জানায়, প্রিন্স হ্যারি রাজকীয় ঐতিহ্য ভেঙে স্ত্রীকে একটি বিয়ের আংটি পরিয়ে দেন। হ্যারির আংটিটি প্ল্যাটিনামের ও মেগানের আংটিটি ওয়েলস স্বর্নের একটি খণ্ড দিয়ে তৈরি করা হয়। বিয়ে অনুষ্ঠান সম্পন্ন হবার পর  সেন্ট জর্জ হলে রানির দেওয়া মধ্যাহ্ন ভোজে অংশ নেন অতিথিরা। রিসিপশনের সময় মেগান রাজকীয় নববধূর ঐতিহ্য ভেঙে বক্তব্য দিয়েছেন এমন তথ্য জানায় বিবিসি। তবে প্রধানমন্ত্রী টেরেসা মেসহ কোন রাজনীতিককে এই বিয়ের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। উইন্ডসর প্রাসাদে এই প্রথমবারের মতো সাধারণ জনগণের মধ্য থেকে ১২০০ ব্যক্তিকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। সব আনুষ্ঠানিকতার পর উপস্থিত দর্শকদের সামনে রাজকীয় চুম্বন পর্ব সারেন এই দম্পতি। পরে নিয়ম অনুযায়ী উইন্ডসর শহরে ঘোড়ার গাড়িতে ঘোরেন তারা। রাস্তার দুই পাশে লাখ লাখ সাধারণ মানুষ তাদের অভ্যর্থনা জানান।

সময়ের ধারা নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com