শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ০৮:৪১ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
ময়মনসিংহের ভালুকা পৌর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী সাংবাদিক- জামাল ৬৫ হাজার টাকা ঘুষ নিয়ে ১০ জেলেকে ছেড়ে দিলেন এএসআই! ময়মনসিংহের ভালুকায় গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে ইউপি সদস্যকে গণধোলাই পুলিশে শোপর্দ ৩৬ তম বিসিএস পুলিশ ব্যাচের সভাপতি ইমরুল, সা.সম্পাদক রাকিব সাংবাদিক পীর হাবিবুর রহমানের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের প্রতিবাদে রংপুরে মানববন্ধন রাজনীতি আমার পেশা নয় আমার নেশা আলহাজ্ব এম.এ ওয়াহেদ ময়মনসিংহের ভালুকায় বিশ্ব হাতধোয়া দিবস উপলক্ষে র‌্যালী আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত সূর্যসেন হলে কোনো ‘টর্চার সেল’ নেইঃ হল সংসদ জাপান ভয়াবহ তাইফুন এর সম্মুখীন হাটহাজারী উপজেলা চেয়ারম্যান গোল্ডকাপ ফুটবলের প্রতিনিধি সভা অনুষ্ঠিত 
শিগগির আপিল বিভাগে বিচারক নিয়োগ

শিগগির আপিল বিভাগে বিচারক নিয়োগ

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, সংবিধান অনুযায়ী সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে বিচারক নিয়োগ দেওয়ার এখতিয়ার একমাত্র রাষ্ট্রপতির। আমি যতদূর জানি এ বিষয়ে রাষ্ট্রপতি চিন্তাভাবনা করছেন। আশা করি শিগগিরই তিনি সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে কিছু সংখ্যক নতুন বিচারক নিয়োগ করবেন।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের ২১তম অধিবেশনে আজ প্রশ্নোত্তর পর্বে সরকার দলীয় সদস্য মাহবুব আলীর সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।

নিকাহ রেজিস্টাররা একইসঙ্গে শিক্ষক হিসেবে সুবিধা পাবেন না
এরআগে সরকারি দলের আলী আজমের  (ভোলা-১) লিখিত প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী বলেন, সরকারি লাইসেন্সপ্রাপ্ত নিকাহ রেজিস্টাররা একইসঙ্গে সরকারি এমপিওভুক্ত শিা প্রতিষ্ঠানের শিক হিসেবে দুই প্রতিষ্ঠান থেকে সুবিধা ভোগ করতে পারেন না। কোনো নিকাহ রেজিস্টার তার নিজ অধিেেত্রর বাইরে কোনো সরকারি এমপিওভুক্ত শিা প্রতিষ্ঠানে শিক হিসেবে বা অন্য কোনো পদে চাকরি করলে তার লাইসেন্স বাতিলসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
বিচারাধীন মামলার সংখ্যা প্রায় ৩৪ লাখ
মহিলা এমপি বেগম সানজিদা খানমের লিখিত প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, দেশের আদালতসমূহে চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত বিচারাধীন মামলার সংখ্যা ৩৩ লাখ ৯৫ হাজার ৬৪৯টি।
এর মধ্যে দেওয়ানি মামলার সংখ্যা ১৩ লাখ ৯০ হাজার ২০৯টি। ফৌজদারি মামলার সংখ্যা ১৯ লাখ ১৮ হাজার ৫২৭টি। অন্যান্য (কনটেম্পট পিটিশন/ রীট/ আদিমসহ) মামলার সংখ্যা ৮৬ হাজার ৯১৩টি।
আইনমন্ত্রী আরো বলেন, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের মোট বিচারাধীন মামলার সংখ্যা ৫ লাখ ৩ হাজার ৫১২টি। এর মধ্যে আপিল বিভাগে বিচারাধীন মামলার সংখ্যা ১৮ হাজার ২৪৬টি এবং হাইকোর্ট বিভাগে বিচারাধীন মামলার সংখ্যা ৪ লাখ ৮৫ হাজার ২৬৬টি। এছাড়া অধস্তন আদালতে মোট বিচারাধীন মামলার সংখ্যা ২৮ লাখ ৯২ হাজার ১৩৭টি।
আইনমন্ত্রী আরো বলেন, ২০১৪ সাল থেকে এ পর্যন্ত বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে ৩ জন ও হাইকোর্ট বিভাগে ২৮ জন বিচারপতি নিয়োগ দেয়া হয়েছে। এছাড়া, অধস্তন আদালতে মোট ৪২৭ জন সহকারী জজ নিয়োগ দেয়া হয়েছে। তিনি আরো জানান, সরকার নারী ও শিশু নির্যাতন অপরাধ দমন সংক্রান্ত মামলার দ্রæত নিষ্পত্তির জন্য আরো ৪১টি ট্রাইব্যুনাল ও ২টি সন্ত্রাস বিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনাল সৃজন করেছে এবং ওই ট্রাইব্যুনালসমূহের জন্য ২০৫টি সহায়ক পদও সৃজন করা হয়েছে। নবসৃজিত এ পদগুলোতে বিচারক নিয়োগ দেয়া হয়েছে। এছাড়া নি¤œ আদালতের বিচারকদের দতা বৃদ্ধির সঙ্গে মামলা নিষ্পত্তিতে দীর্ঘসূত্রিতা কমিয়ে আনতে সরকার তাদের দেশে-বিদেশে প্রশিণের কার্যক্রম গ্রহণ করেছে।
২৫০ জনের অধিক সিনিয়র জজের পদ শুন্য
সংসদ সদস্য গোলাম দস্তগীর গাজীর এক প্রশ্নের জবাবে আনিসুল হক জানান,  বিগত বছর সমূহে ২৫০ জনের অধিক সিনিয়র জজ, সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিট্রেট, সমপর্যায়ের বিচারকদের যুগ্ম জেলা জজ বা সমপর্যায়ের পদে পদোন্নতি প্রদান করার উক্ত পদগুলো শুন্য হয়েছে। তিনি জানান, ২০১৫ সালে ১০ম জুডিশিয়াল সার্ভিস পরীক্ষায়- সাময়িকভাবে মনোনীত ২০৭ জন প্রার্থীর মধ্যে ১৯৮ জনকে সহকারী জজ পদে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। এছাড়া ২০১৭ সালে ১১তম জুডিশিয়াল সার্ভিস পরীক্ষা উত্তীর্ণদের মধ্যে সহকারী জজ পদে সুপারিশকৃত সাময়িকভাবে মনোনীত ১৪৩ জন প্রার্থীর স্বাস্থ্যপরীক্ষার জন্য স্বাস্থ্যঅধিদপ্তরকে অনুরোধ জানান হয়েছে। এছাড়া ১২তম জুডিশিয়াল সার্ভিস পরীক্ষা প্রিলিমিনারী পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। এসব প্রার্থীদের নিয়োগ সম্পন্ন হলে জুডিশিয়াল/ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিট্রেটের উক্ত শুন্যপদ পূরণ করা সম্ভব হবে।
পিপিদের সম্মাণী ৪৫ হাজার
মহিলা এমপি উম্ম কুলসুম স্মৃতির এক সম্পূশ্নের জবাবে আইন মন্ত্রী বলেন, বর্তমানে বিভিন্ন জেলা আদালতে পিপি, জিপি ও এপিপিদের সম্মানীভাতা খুবই কম। তাদরে সম্মানীভাতা বাড়ানোর জন্য আমরা একটা স্ট্রাকচার তৈরি করেছি। এর জন্য বড় জেলা – ছোট জেলা ভিত্তিক ক্যাটাগরিক্যালী স্ট্রাকচার তৈরি করা হচ্ছে। বড়  এবং গুরুত্বপূর্ণ জেলার আদালতের পিপিদের সম্মানীভাতা ৪৫ হাজার এবং সর্ব নিম্ম সম্মানীভাতা যাতে ২৫ হাজারের কম না হয় সে বিষয়ে আমি ইতিমধ্যে অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে প্রস্তাবনার বিষয়ে জানিয়েছি।
দেশে আইনের সংখ্যা ১১২৯ টি
একই প্রশ্নকর্তার লিখিত প্রশ্নের জবাবে আইন মন্ত্রী জানান, বর্তমানে (২০১৮ সালের ৩০ পর্যন্ত) দেশে ১ হাজার ১২৯টি আইন প্রচলিত রয়েছে।

সময়ের ধারা নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com