সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৩২ পূর্বাহ্ন

ইউপি নির্বাচন-২০২১ সামনে রেখে শাক্তা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আলোচনার শীর্ষে হাজী হাবিবুর রহমান

ইউপি নির্বাচন-২০২১ সামনে রেখে শাক্তা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আলোচনার শীর্ষে হাজী হাবিবুর রহমান

বিশেষ প্রতিনিধি: মুজিবশতবর্ষে আসন্ন ইউপি নির্বাচনকে সামনে রেখে কেরানীগঞ্জে চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা। প্রথম ধাপের ইউপি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকেই সারা দেশের মতো কেরানীগঞ্জে ইউপি নির্বাচনের হাওয়া বইছে চা দোকান থেকে শুরু পাড়া মহল্লা সর্বত্র আলোচনার মূখ্য বিষয় ইউপি নির্বাচন-২০২১। ইতোমধ্যে আওয়ামী লীগ-বিএনপিসহ অন্যান্য রাজনৈতিক দলের প্রার্থীরা দৌড়-ঝাঁপ শুরু করেছেন এবং ভোটারদের কাছে দোয়া-আশীর্বাদ প্রার্থণা করছেন। কেরানীগঞ্জ উপজেলার শাক্তা ইউনিয়নে এর দৃশ্যপট পুরোটাই ভিন্ন। কারণ, এই ইউনিয়নে একাধিক প্রার্থীর নাম শোনা গেলেও বর্তমানে ঢাকা জেলা আওয়ামীলীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক ও কেরানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের অন্যতম সদস্য হাজী হাবিবুর রহমান হাবিব জনপ্রিয়তায় এগিয়ে রয়েছেন সাধারন মানুষের কাছে। কারণ হিসেবে জানা গেছে, হাজী হাবিবুর রহমান হাবিব ছাত্রজীবন থেকেই সমাজসেবামূলক কার্যক্রম অব্যাহত রেখে সাধারণ মানুষের সুখে দু:খে পাশে ছিলেন এবং বর্তমানে ও আছেন। এছাড়াও কোভিড-১৯ বা করোনাকালীন সময়ে কেরানীগঞ্জের কর্মহীন মানুষের মাঝে ব্যক্তিগত অনুদান দিয়ে মানুষের পাশে থেকেছেন সবসময় এবং ব্যক্তিগত ভাবে মানুষের আপদে-বিপদে যে কোন ধরণের আর্থিক সহায়তা করে যাচ্ছেন সাধ্যমত। এলাকার সাধারণ মানুষের সাথে তার রয়েছে নিবির সম্পর্ক। তাই সফল সমাজসেবক হাজী হাবিবুর রহমান হাবিবকেই জনপ্রতিনিধি হিসেবে চান শাক্তা ইউনিয়নের স্থানীয় বাসিন্দারা। হাজী হাবিবুর রহমান হাবিব শাক্তা ইউনিয়নের সবশ্রেণী মানুষের সাথে ভাল ব্যবহার,ক্লিন ইমেজ এবং সাধারণ মানুষের সেবা প্রদানে আন্তরিকতার কারণে ভোটাররা তাকে জনপ্রতিনিধি হিসেবে প্রত্যাশা করছেন। সম্প্রতি শাক্তা ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ডের সাধারণ মানুষের কাছে জানতে চাইলে অনেকেই এই প্রতিবেদককে বলেন, হাজী হাবিবুর রহমান হাবিব পারিবারিকভাবেই ধনাঢ্য পরিবারের সন্তান। তাদের প্রচুর অর্থ সম্পদ রয়েছে। তাই তিনি শাক্তা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে ইউনিয়নের অনেক উন্নয়ন হবে। সাধারণ মানুষের ধারণা যারা বিগত দিনে শাক্তা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে সরকারী অনুদানে অনেক ক্ষেত্রেই কোন উন্নয়ন করতে পারেন নাই। হাজী হাবিবুর রহমান হাবিব চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে সরকারী অনুদানের পাশাপাশি ব্যক্তিগত অনুদান দিয়ে শাক্তা ইউনিয়নকে আধুনিক মডেল হিসেবে গড়ে তুলবেন এতে কোন সন্দেহ নেই। খোঁজ নিয়ে আরো জানা গেছে,ইতোমধ্যে অনেকেই শাক্তা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে নিজেদের জানান দিয়ে দোয়া চেয়ে জনগণের কাছাকাছি যেতে চাইছেন, নিজেকে জনগণের প্রার্থী হিসেবে পরিচিত করছেন। তবে তাদের মধ্যে হেভিওয়েট প্রার্থী হিসেবে হাজী হাবিবুর রহমান হাবিব এর কোন বিকল্প কাউকে দেখা যায়নি। কারণ, দীর্ঘদিন থেকে হাজী হাবিবুর রহমান হাবিব নিজের দক্ষ যোগ্যতা,ভালবাসা,অভিজ্ঞতা দিয়ে শাক্তা ইউনিয়নে সাধারণ মানুষের আস্থা অর্জন করেছেন তিনি। নিজেকে আওয়ামী লীগের শতভাগ সম্ভাব্য প্রার্থী দাবি করে দলের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় রয়েছেন শাক্তা ইউনিয়নবাসীর প্রিয় মূখ বর্তমান জনপ্রিয় ও সফল সমাজসেবক হাজী হাবিবুর রহমান হাবিব। এ বিষয়ে জানতে চাইলে, ঢাকা জেলা আওয়ামীলীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক ও কেরানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের অন্যতম সদস্য,বিশিষ্ট দানবীর ও সমাজসেবক হাজী হাবিবুর রহমান হাবিব বলেন, আমি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের সৈনিক এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক দর্শন ও উন্নয়নের রাজনীতিতে বিশ্বাস করি এবং একইসাথে শাক্তা ইউনিয়নের উন্নয়নে ব্যক্তিগত অর্থায়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছি। তিনি আরো বলেন,আমি স্বপ্ন দেখি একটি সুন্দর সকালের। চোখের সামনে ভেসে উঠে আমার প্রিয় শাক্তা ইউনিয়নের অবহেলিত মানুষের প্রতিচ্ছবি। আমি চেষ্টা করি এলাকার অসহায় মানুষের ভাগ্য-উন্নয়নে কাজ করতে। কারণ, মানুষ আজীব বেঁচে থাকবে না এবং অর্থ সম্পদ নিয়ে কেউ কবরে যেতে পারবে না। হাজী হাবিবুর রহমান হাবিব আরও বলেন, আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন-২০২১ এ শাক্তা ইউনিয়নে দলীয়ভাবে আমাকে নমিনেশন দিলে আমি বিপুল ভোটে নির্বাচিত হব ইনশাআল্লাহ। সেজন্য আমি সকলের কাছে দোয়া চাই এবং সমর্থন চাই।

সময়ের ধারা সংবাদটি শেয়ার করুন এবং আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ

© All rights reserved © somoyerdhara.com
Desing by Raytahost.com